[X]

‘জুবায়ের লিখন অনেকদিন জাতীয় দলে খেলার সামর্থ্য রাখে’

বেশ কিছু বছর ধরেই বিসিবির গেম ডেভেলপমেন্টে কোচ হিসেবে নিরলস পরিশ্রম করে যাচ্ছেন ওয়াহিদুল গনি। বর্ষীয়ান এই ক্রীড়া ব্যক্তিত্ব এদেশের ক্রিকেটের একজন গুরুত্বপূর্ণ অভিভাবক।
সম্প্রতি কালের কণ্ঠ পত্রিকার মুখোমুখি হয়েছেন তিনি। সেখানে কথা বলেছেন বাংলাদেশের গত কয়েক বছরে একমাত্র লেগ স্পিনার জুবায়ের লিখনের ভবিষ্যৎ নিয়ে। এছাড়াও এদেশে লেগ স্পিনারদের ভবিষ্যৎ নিয়েও জানা গেলো তার কাছ থেকে। জানিয়েছেন,
“আমার সময়ে বাংলাদেশের কেউ যেমন লেগ স্পিনটা বোঝেনি, তেমনি এখনো কেউ বোঝে না। লিখনকে (জুবায়ের হোসেন) দিয়ে চেষ্টা হয়েছে। তবে ছেলেটিকে সময়ের আগে জাতীয় দলে খেলিয়ে দেওয়া হয়েছে। আমি এখনো মনে করি, ও অনেক দিন জাতীয় দলে খেলার সামর্থ্য রাখে।
এই যে কিছু দিন আগে রবির স্পিন হান্ট কার্যক্রমে আমি প্রধান কোচ ছিলাম। সেখানে বাছাই করা ১০ জনের মধ্যে সাতটি ছেলেই তো লেগ স্পিনার। ওদের ঘষেমেজে তৈরি করতে পারলে ভবিষ্যতে অনেক লেগ স্পিনার দেখবেন।”
জানিয়ে রাখা ভালো, বর্ষীয়ান এই কোচের ক্রিকেট ক্যারিয়ার অনেক লম্বা। প্রায় ২০ বছর ধরে তিনি খেলেছেন ঢাকার ঐতিহ্যবাহী ক্রীড়া সংঘটন মোহামেডানে। লেগ স্পিনার হিসেবেই খেলতেন তিনি। আর সেখানেই তার ঘূর্ণিতে কুপোকাত হয়েছেন আশি বা নব্বই দশকের অনেক ভালো ক্রিকেটার।
এমনকি আন্তর্জাতিক মানের ক্রিকেটাররাও প্রশংসা করে গেছেন তার। সুদীর্ঘ ক্রিকেট জীবনে অনেক বেশি অভাগা তিনি। অর্জুনা রানাতুঙ্গা-প্রণব রায়রা তো বলেই গেছেন “তুমি অন্যদেশে জন্ম নিলে টেস্ট খেলতে!” নিজের ক্রিকেট জীবন প্রসঙ্গে গনি জানান,
“বলে টার্ন বেশি পেতাম, বাউন্স অনেক বেশি। রানাতুঙ্গা, রুমেশ রত্নায়েকেরাও আমাকে ঠিকমতো খেলতে পারত না। আর ঢাকা স্টেডিয়ামে ছিল স্লো উইকেট। টার্ন পেলেও বাউন্স পাওয়া যেত না। সে কারণে বোলিংয়ে ধার একটু হয়তো কম থাকত।
একবার মোহামেডানে খেলতে এসেছিল অর্জুনা রানাতুঙ্গা, ও সবাইকে বলত, ‘জন্ম শ্রীলঙ্কায় হলে ওয়াহিদুল গনি টেস্ট খেলত।’ ভারতের ক্রিকেটার প্রণব রায়ও অনেক দিন খেলেছে মোহামেডানে। সেও আমাকে বলতো, ‘ভারতে জন্মালে তুমি টেস্ট খেলতে।’ ”
উল্লেখ্য, জাতীয় দলে শাহরিয়ার নাফিস বা মোহাম্মদ আশরাফুলের হাতেখড়িও তার অধীনেই। এমনকি শুধু তারাই নয়, ঘরোয়া ক্রিকেটের আরো অনেক অপরিচিত ক্রিকেটারকেও দীক্ষা দিয়েছেন তিনি। হয়তো এদেশের টেস্ট ক্রিকেটার হননি, কিন্তু নিরলস পরিশ্রম করে যাচ্ছেন ভবিষ্যৎ ক্রিকেটারের খোঁজে।