[X]

সেঞ্চুরির পর দুই আঙুল দেখালেন কেন ধাওয়ান, জানালেন দিনের শেষে

শনিবার (১২ আগস্ট) পাল্লেকেলেতে ফের ধাওয়ান ঝড়ে আক্রান্ত শ্রীলঙ্কার বোলাররা। ১২৩ বলে ১১৯ রান করলেন দিল্লির বাঁ-হাতি ব্যাটসম্যান। স্ট্রাইক রেট? ৯৬.৭৪! শিখরের ব্যাটিং বিক্রম দেখে অনেকে বিভ্রান্ত হয়ে পড়ছিলেন যে, টেস্ট ম্যাচ দেখছেন নাকি ওয়ানডে!

প্রথম দিনের খেলার শেষে সাংবাদিক বৈঠকে এসে ধাওয়ান বললেন, ‘‘রাজার মতো খেললে রাজার মতোই আউট হওয়া উচিত। সৈনিকের মতো নয়। আগ্রাসী ব্যাটিং‌ করে রান করলে আগ্রাসী খেলেই আউট হওয়া উচিত। ডিফেন্স করতে গিয়ে স্লিপে ক্যাচ দিয়ে ফেরার চেয়ে সেটা অনেক ভাল।’’

ফর্ম হারানোয় গত বছরের সেপ্টেম্বরে জাতীয় টেস্ট দল থেকে বাদ পড়েছিলেন। প্রত্যাবর্তন ঘটিয়ে চলতি টেস্ট সিরিজে জোড়া সেঞ্চুরি। মানসিকতায় কোনও পরিবর্তন ঘটিয়েছেন? শিখর বলছেন, ‘‘যখন ব্যর্থ হচ্ছিলাম, একটু রক্ষ্মণাত্মক হয়ে পড়েছিলাম। কিন্তু এখন মাঠে গিয়ে নিজের স্বাভাবিক ক্রিকেট খেলছি। তাতেই সফল হয়েছি। এখন চেষ্টা করি যতটা বেশি সময় ধরে সম্ভব ব্যাটিং করে যেতে।’’

ওপেনিং জুটিতে কে এল রাহুলের সঙ্গে ১৮৮ রান যোগ করেছেন ধাওয়ান। ৮৫ রান করে আউট হয়েছেন রাহুল। তবে দিনের শেষের দিকে পরপর উইকেট হারিয়ে ভারতের স্কোর ৩২৯/৬। চাপ তৈরি হয়ে গেল? ধাওয়ান উড়িয়ে দিচ্ছেন। বলছেন, ‘‘পিচে খুব একটা বাউন্স নেই। মন্থর চরিত্রের উইকেট।

আমি ও রাহুল ভাল খেলেছি। পিচের জন্য শেষের দিকে কয়েকটা দ্রুত উইকেট পড়েছে বলে মনে করি না। আমরা আউট হয়েছি শট খেলতে গিয়ে। তারপর অবশ্য শ্রীলঙ্কার বোলাররা ভাল বল করেছে। তবে আমরা স্কোরবোর্ডে ভদ্রস্থ রান তুলেছি। কাল বাকি ব্যাটসম্যানেরা আরও রান করবে।’’

সেঞ্চুরির পর দুই আঙুল দেখিয়ে ইঙ্গিত কি বিশেষ কারণে? ধাওয়ান বলছেন, ‘‘সতীর্থদের সঙ্গে মজা করছিলাম। একটা ইঙ্গিত করেছিলাম। তবে সেটা সিরিজে আমার দ্বিতীয় সেঞ্চুরি হল বলে নয়। সতীর্থরা আমাকে একটা নতুন নাম দিয়েছে। সেটাই বোঝাচ্ছিলাম।’’ কী নাম, সেটা অবশ্য ফাঁস করেননি তিনি।