এবার রেকর্ডের খাতায় পাণ্ডিয়া

শাস্ত্রী যুগের উত্থানটা এমন ঝমকালো হবে সেটা হয়তো শাস্ত্রী নিজেও ভাবেননি। শিষ্যদের অনবদ্য ব্যাটিং পুরো ক্রিকেট বিশ্বকে চমকে দেয়ার মতো। এই যেমন ক্যান্ডি টেস্টের দ্বিতীয় দিনেই রেকর্ড বইয়ে নাম লিখালেন তরুণ অলরাউন্ডার হার্ডিক পাণ্ডিয়া।

বয়স সবে ২৩। এই বয়সে তার যাদুকরি খেল দেখে প্রতিপক্ষকে বিস্মিত হতে হয় প্রতিনিয়তই। চলমান লঙ্কা সফরে ক্যান্ডি টেস্টের দ্বিতীয় দিন প্রথম সেশনেই সেঞ্চুরি তুলে ১০৮ রানের দুর্দান্ত ইনিংস খেলেন। আউট হওয়ার আগে ৯৬ বল মোকাবেলা করে ৮টি চার ও ৭টি ছক্কায় নিজের রেকর্ড গড়া ইনিংসটি খেলেন তিনি।

ভারতীয়দের আগের দিন ভালোভাবেই শাসন করেছিলেন  মালিন্দা পুষ্পকুমারা। কিন্তু দ্বিতীয় দিনে তার বলেই রেকর্ড গড়লেন পাণ্ডিয়া। ভারতের ইনিংসের ১১৬তম ওভার তখন। পুষ্পকুমারার প্রায় প্রতিটি বলেই শাসকের ভূমিকায় ছিলেন ব্যাটসম্যান পাণ্ডিয়া। শুধুমাত্র শেষ বলটি ছাড়া।

ওভারটি ছিলো এমন ৪,৪,৬,৬,৬,০। এক ওভারে ২৬ রান, তাও আবার টেস্টে! তাই টেস্টের ইতিহাসে প্রথম ভারতীয় হিসেবে এক ওভারের সবচেয়ে বেশি রান সংগ্রহের নয়া রেকর্ড গড়লেন তিনি। এর আগে ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের এক ওভারে সর্বোচ্চ রান ছিলো ২৪।

এটি করেছিলেন সন্দ্বীপ পাতিল ও কপিল দেব। ১৯৮২ সালে প্রথম রেকর্ড গড়েন পাতিল। আর ১৯৮৯ সালে ঐ রেকর্ডে ভাগ বসান কপিল। তাই ২৮ বছর আগে হওয়া পুরনো ইতিহাস ভেঙ্গে নতুন রেকর্ড গড়লেন পান্ডে।

ভারতের প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে এক সেশনে অর্থাৎ মধ্যাহ্ন বিরতির আগে সেঞ্চুরির রেকর্ড গড়লেন তিনি। তবে ক্রিকেট ইতিহাসে এটি ২৩তম ঘটনা। যার মধ্যে টেস্টের প্রথম দিনই মধ্যাহ্ন-বিরতির আগে এক সেশনে সেঞ্চুরি করেন পাঁচ ব্যাটসম্যান।

আগের দিন শেষ বেলায় ব্যাটে নামা পাণ্ডিয়া দ্বিতীয় দিনে শতক হাঁকাতে বল খরচ করেন ৮৬টি। শেষ পর্যন্ত ৯৬ বলে ১০৮ রান তুলে বিদায় নেন এই তারকা। দলের অবস্থাও এই মুহূর্তে তুঙ্গে। প্রথম ইনিংসে ভারতীয়দের সংগ্রহ ৪৮৭।

কিন্তু এই রান সংগ্রহ করতে গিয়ে শ্রীলঙ্কা ১৩৫ রানেই গুঁটিয়ে যায়। ফলে ফলো অনের লজ্জা এড়াতে পারেনি স্বাগতিকিরা। ফের ব্যাটে নামতে হয়েছে তাদের। আবার ব্যাটে নেমে দিন শেষে লঙ্কানেদের সংগ্রহ ১ উইকেট হারিয়ে ১৯ রান।