শতাব্দীর সেরা পূর্ণগ্রাস সূ‌র্যগ্রহণ দেখতে উন্মাদনা চরমে

ভরদুপুরে ঘনাবে সাঁঝবেলা। ঢাকা পড়বে সূ‌র্য। শতাব্দীর সেরা গ্রহণ দেখার জন্য উন্মাদনায় ফুটছে গোটা মার্কিন ‌যুক্তরাষ্ট্র। সোমবার মার্কিন ‌যুক্তরাষ্ট্রে দেখা ‌যাবে পূর্ণগ্রাস সূ‌র্যগ্রহণ। ১৯১৮ সালের পর এই প্রথম মার্কিন ‌যুক্তরাষ্ট্রে পশ্চিম উপকূল থেকে পূর্ব উপকূল প‌র্যন্ত দেখা ‌যাবে গ্রহণ। গ্রহণ প‌র্যবেক্ষণে ‌যন্ত্রপাতি নিয়ে তৈরি নাসাও। কমোর বাঁধছেন সেদেশের মহাকাশ উৎসুকরাও।

স্থানীয় সময় সোমবার সকাল ১০.১৫ মিনিটে মার্কিন ‌যুক্তরাষ্ট্রের পশ্চিম উপকূলে শুরু হবে পূর্ণগ্রাস। পূর্ব উপকূলে পূর্ণগ্রাস দেখা ‌যাবে স্থানীয় সময় ২.৪৫ মিনিটে। মার্কিন ‌যুক্তরাষ্ট্রের ১৪টি রাজ্য থেকে দেখা ‌যাবে গ্রহণ। সর্বোচ্চ পূর্ণগ্রাস দেখা ‌যাবে ইলিওনস থেকে। পূর্ণগ্রাসের স্থায়িত্ব হবে ২ মিনিট ৪০.৬ সেকেন্ড।

সকাল ১০.১৫ মিনিটে গ্রহণ শুরু হবে ওরেগন প্রদেশের প্রশান্ত মহাসাগরীয় উপকূল থেকে। স্থানীয় সময় দুপুর ২.৫০ মিনিটে শেষ পূর্ণগ্রাস দেখা ‌যাবে সাউথ ক্যারোলিনার আটলান্টিক উপকূলে। পূর্ণগ্রাসের সময় চাঁদের নীচে ঢাকা পড়বে সূ‌র্য। কিছুক্ষণের জন্য রাতের আঁধার ঘনাবে গোটা এলাকায়। স্থানীয় সংবাদমাধ্যমের অনুমান, এই প্রথম কোনো মহাজাগতিক ঘটনা দেখবেন এত মানুষ। জনপ্রিয়তার নিরিখে এই গ্রহণ ভেঙে দেবে পুরনো সব রেকর্ড।

কীভাবে দেখবেন গ্রহণ?
বিজ্ঞানীরা স্পষ্ট জানিয়েছেন, পূর্ণগ্রাসের সময়টুকু ছাড়া খালি চোখে গ্রহণ দেখার চেষ্টাও করবেন না। গ্রহণ দেখার জন্য বিশেষ চশমা মিলছে বিভিন্ন জায়গায়। উৎসাহীদের সেই চশমা বিনামূল্যে বিতরণ করছে বিভিন্ন সংস্থা। চশমা সংগ্রহ করুন।

অথবা কোনো কাগজে ছোট্ট একটি ফুটো করে বিপরীত পাশে রাখা সাদা কাগজে দেখতে পারেন গ্রহণ।
নইলে কোনো কাচের প্লেটে মোটা করে ভুসো কালি পরিয়ে দেখতে পারেন গ্রহণ।

মার্কিন মুলুকে গ্রহণকে কেন্দ্র করে উন্মাদনা চরমে। গ্রহণ দেখতে বিভিন্ন জায়গা থেকে পূর্ণগ্রাসের পথে থাকা শহরগুলিতে ভিড় জমিয়েছেন মানুষজন। জমে উঠেছে প‌র্যটন ব্যবসাও। ভিড় সামলাতে বিশেষ বিমান চালাচ্ছে বহু সংস্থা।

সোমবার সূ‌র্যস্তের সময় গ্রহণ দেখা ‌যাবে ব্রিটেন, স্পেন, ফ্রান্স-সহ পশ্চিম ইউরোপের বেশ কিছু দেশ থেকেও।