উড়ন্ত বিমানের ভিতরে টয়লেটেও চলে জমজমাট দেহ ব্যবসা

মাঝ আকাশে বিমানে থাকা অবস্থায় প্রতিনিয়ত চালিয়ে যাচ্ছে দেহ ব্যবসা! আকাশ পথে হলেও খদ্দেরের কোন অভাব নেই। কারণ খদ্দের হলো বিমানের ভেতরে থাকা পয়সাওয়ালা যাত্রীরা। দিনের পর দিন এইভাবে মোটা অঙ্কের আয় করে আসছিল এক এয়ারহোস্টস।

অবশেষে ফাঁস হয়ে গেল থাইল্যান্ডের ঐ তরুণী বিমান সেবিকার কীর্তি। মধ্যপ্রাচ্যের এক এয়ারলাইন্সে বিমানসেবিকা হিসেবে কাজ করতেন এই থাই সুন্দরী। গত দুই বছরে বিমান আকাশে উড়ার পরেই যাত্রীদের সঙ্গে টয়লেটে যৌন ব্যবসা করে তিনি। আর তা করে এখনও পর্যন্ত এক কোটি মার্কিন ডলার আয় করেছেন।

সম্প্রতি রাই আল ইয়াওম নামে আরবী ভাষার একটি ওয়েবসাইটে এই ধরনের একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়। তাতে বলা হয়, ওই তরুণী গাল্ফ এয়ারে কাজ করতেন। বিমানের যাত্রীদের কাছ থেকে সার্ভিস চার্জের অংশ হিসেবে তিনি এক কোটি ডলার কামিয়েছেন। দেহসেবা দিয়ে প্রতিবার এই থাই তরুণী বিমানসেবিকা এক একজন যাত্রীর কাছ থেকে দুই হাজার ডলার করে নিতেন।

তবে প্রতিবেদনে তরুণীর পরিচয় সম্পর্কে বিস্তারিত কিছু উল্লেখ করা হয়নি। গত দুই বছরে তরুণী বিমানের টয়লেটে যাত্রীদের সঙ্গে কমপক্ষে পাঁচশত বারের মতো দৈহিক সম্পর্কে মিলিত হয়েছেন বলে এতে উল্লেখ করা হয়েছে।

ওই থাই-সুন্দরী বিষয়টি স্বীকার করে বলেছেন, অনেক যাত্রীর সঙ্গে চলন্ত বিমানের টয়লেটে তিনি যৌন সম্পর্কে গিয়েছেন। বিশেষ করে উপসাগরীয় ও যুক্তরাষ্ট্রের মত দীর্ঘ যাত্রায় বিষয়টি বেশি হত। এসব ঘটনা কোন এয়ারলাইন্সে হত তা প্রকাশ করা হয়নি। তবে বিমান কর্তৃপক্ষ তাৎক্ষণিকভাবে ওই তরুণীকে বরখাস্ত করেছে।