বিমানবন্দরে প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানালেন মাশরাফি

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতে ফুলের তোড়া তুলে দিচ্ছেন মাশরাফি বিন মুর্তজা, বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন ও বিসিবি পরিচালক নাঈমুর রহমান দূর্জয়। ছবি: বিসিবি

জাতিসংঘ সফর থেকে ফেরার পর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে শনিবার সকালে বিমানবন্দরে সংবর্ধনা দেন মন্ত্রিসভার সদস্য ও ঊর্ধ্বতন সামরিক ও বেসামরিক কর্মকর্তারা ছাড়াও লেখক, শিল্পী, শিক্ষাবিদ, সংস্কৃতিকর্মী ও ব্যবসায়ী নেতারা। এই সংবর্ধনায় বাদ ছিল না ক্রীড়াঙ্গনও। ফুল দিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে বরণ করে নেন বাংলাদেশ ওয়ানডে দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা।

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন এবং পরিচালক নাঈমুর রহমান দূর্জয়ের সাথে ক্রীড়াঙ্গনের পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রীর হাতে ফুলের তোড়া তুলে দেন মাশরাফি। এ সময় মাশরাফিদের সঙ্গে কুশল বিনিময়ও করেন প্রধানমন্ত্রী। প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানানোর পর সকাল ১০.১৫ মিনিটে সাকিব আল হাসান, নাসির হোসেন ও সাইফউদ্দিনকে সঙ্গে নিয়ে দক্ষিণ আফিকার উদ্দেশে দেশ ছাড়েন মাশরাফি।

মাশরাফি ছাড়াও এদিন সাহিত্যিক রাহাত খান, শিল্পী হাশেম খান, সংস্কৃতিকর্মী আতাউর রহমান, গোলাম কুদ্দুস, সারা যাকের, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক মো. আখতারুজ্জামান বিমানবন্দরে প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানান।

রোহিঙ্গাদের প্রতি মানবিক আচরণের জন্য ব্রিটিশ পত্রপত্রিকা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ‘মাদার অব হিউম্যানিটি’ আখ্যায়িত করেছে। সংযুক্ত আরব আমিরাতের (ইউএই) সর্বাধিক প্রচারিত দৈনিক (খালিজ টাইমস) রোহিঙ্গা সংকটের প্রতি মানবিক আবেদনের জন্য বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে উচ্ছসিত প্রসংসা করে তাকে প্রাচ্যের নতুন তারকা হিসাবে অভিহিত করেছে।

জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের ৭২তম অধিবেশনে রোহিঙ্গাদের নিরাপত্তা ও তাদের ফেরত নিতে প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া পাঁচ দফা প্রস্তাব বিশ্ব নেতৃবৃন্দের কাছে ব্যাপক গ্রহণযোগ্যতা পায়। এসব কারণে প্রধানমন্ত্রীকে সংবর্ধনা দেয়ার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে আওয়ামী লীগ।

সূত্র: প্রিয়.কম