স্যার ভিভিয়ান রিচার্ডসের ১৮১

চলতি বছর গার্ডিয়ানকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে স্যার ভিভিয়ান রিচার্ডস বলেছিলেন,‘আমি আমার বাচ্চাদের কখনো নিচের দিকে তাকানো শিখাইনি। সব সময় বলে এসেছি উপরের চূড়া দেখ। ওখানে উঠতে হবে। আমি ওখানেই ছিলাম। ওখানেই এখনো আছি।’- মনে হতে পারে ভিভিয়ান রিচার্ডস ঔদ্ধত্য দেখিয়েছেন। মোটেও নয়!

ক্যারিয়ারের পুরোটা সময় মাথা তুলে লড়াই করা ভিভিয়ান রিচার্ডস অনেক ত্যাগ-তীতিক্ষা, চড়াই-উৎরাই পেরিয়ে নিজেকে সর্বকালের সেরা ক্রিকেটার হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেছেন। ‘কিং অব সিক্সেস’ খ্যাত ভিভিয়ান রিচার্ডসের আত্মবিশ্বাস তাই চূড়ার সমান।

সেই আত্মবিশ্বাস নিয়ে ক্রিকেট বিশ্বকে একাধিক ইনিংস উপহার দিয়েছেন ভিভিয়ান রিচার্ডস। তাইতো উইজডেন ক্রিকেটের সেরা ওয়ানডে ইনিংসের শীর্ষ তিনের তালিকায় দুটোতেই রয়েছে তার নাম। একটি ১৯৮৪ সালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ১৮৯ রান এবং অপরটি ১৯৭৯ সালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ১৩৮ রান। এর মধ্যে ১৯৮৪ সালের ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ১৭০ বলে ১৮৯ রানের ইনিংসটি সর্বকালের সেরা ইনিংসের মর্যাদা পেয়েছে।

তবে ১৯৮৭ সালে ক্রিকেট বিশ্বকে নিজের ব্যাটিং ঝলক আরও একবার দেখার সুযোগ করে দিয়েছিলেন হার্ডহিটার এ ব্যাটসম্যান। ৮৭’র বিশ্বকাপে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ১২৫ বলে ১৮১ রানের ইনিংস ক্রিকেট বিশ্ব আজীবন মনে রাখবে। কারণ শেষ ৮১ রান তিনি করেছিলেন মাত্র ২৭ বলে। তার ঝড়ো ইনিংসে করাচিতে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ৪ উইকেটে করেছিল ৩৬০ রান। যা ওই সময়ে ওয়ানডে ক্রিকেটে সর্বোচ্চ। শুধু তাই নয় ১৮১ রানের ইনিংসটি ওয়নাডে ক্রিকেটে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান ছিল।

ওয়ানডে ক্রিকেটে ৬টি ডাবল সেঞ্চুরি হয়েছে। বিশ্বকাপে হয়েছে ২টি। কিন্তু করাচিতে স্যার ভিভিয়ানোর হাঁকানো ১৮১ রানের ইনিংস এখনও সেরাদের কাতারে রয়েছে। বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত ইনিংসের তালিকায় এখনও শীর্ষে পাঁচে রয়েছে তার ইনিংস।
হঠ্যাৎ স্যার ভিভিয়ান রিচার্ডসের ওই ইনিংস নিয়ে আলোচনা কেন? প্রশ্ন জাগতেই পারে। সর্বকালের সেরা এ ক্রিকেটার করাচিতে আজকের দিনে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে করেছিলেন ১৮১ রান। ৩০ বছর পরও ক্রিকেটপ্রেমিদের স্মৃতিতে ওই ইনিংস এখনও তরতাজা।

তথ্যসূত্রঃ রাইজিংবিডি