জ্যাম দেখলেই উড়ে যান! উড়ন্ত গাড়ি আর কল্পনা নয়

ওড়ার সময়ে এর গা থেকে ডানা বেরিয়ে আসবে এবং রাস্তার দৌড়নোর সময়ে তা গুটিয়ে যাবে। গড়িয়াহাটের মোড় বা শ্যামবাজার। নিরানন্দ ট্রাফিক জ্যামে হাঁসফাঁস। এমন সময়ে মনে হতেই পারে, গাড়ির যদি দুটো ডানা থাকত!

উপরের এই কল্পনা আমাদের সকলেরই কমন। উড়ন্ত গাড়ি ব্যাপারটা জেমস বন্ডের সিনেমায় মাঝে মাঝে দেখা গেলেও বাস্তবে দেখা যায়নি। সেই অদেখা জিনিসটিকেই সাকার করে তুলছে মার্কিন অটোমোবিল সংস্থা স্যামসন মোটরওয়ার্কস।

আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম ‘দ্য মিরর’-এর প্রতিবেদন অনুযায়ী, বিশ্বের প্রথম ফ্লাইং স্পোর্টস কারটি তৈরি করছে স্যামসন মোটরওয়ার্কস।

‘দ্য সুইচব্লেড’ নামের এই গাড়ি-বিমানটিকে যেমন রাস্তায় চালানো সম্ভব তেমনই সম্ভব প্রয়োজনে এটিকে উড়িয়ে নিয়ে যাওয়া। ওড়ার সময়ে এর গা থেকে ডানা বেরিয়ে আসবে এবং রাস্তার দৌড়নোর সময়ে তা গুটিয়ে যাবে।

এরোপ্লেন যেভাবে রানওয়ে দিয়ে দৌড়িয়ে উড়াল দেয়, সেই কেতাতেই উড়বে সুইচব্লেড। যে কোনও বিমানবন্দর থেকে ওড়ানো যাবে একে, অবতরণ করা যাবে যে কোনও বিমানবন্দরে— একথা জানিয়েছেন স্যামসন-এর মুখপাত্র।

তিন রকমের মডেল হবে সুইচব্লেডের। অতি শীতল এলাকার জন্য ‘স্নোবার্ড’, হেভি ডিওউটি ল্যান্ডিংয়ের জন্য ‘ট্রেক’ আর এই দুইয়ের সমন্বয়ে তৈরি হবে তৃতীয় মডেল ‘অরোরা’।

১৩,০০০ ফিট উচ্চতায় ২০০ মিটার প্রতি ঘণ্টা গতিতে উড়তে সমর্থ হবে এই গাড়ি। আর দূষণের বিষয়েও এটি সচেতন থাকবে।

সব মিলিয়ে এর দাম পড়বে ৯০,০০০ পাউন্ড। ভারতীয় মুদ্রায় প্রায় ৭৭ লক্ষ টাকা।

সূত্র: এবেলা