কেন খাবেন কাজু বাদাম ?

শরীর নামের মহাযন্ত্রটিকে সচল রাখার জন্য প্রতিদিনই আমাদের নির্দিষ্ট কিছু পুষ্টির প্রয়োজন হয়। প্রতিদিনের ডাল-ভাত-মাছ-সবজিতে সকল পুষ্টিগুণ পর্যাপ্ত পরিমাণে থাকে না। এজন্য মাছ-ভাতের পাশাপাশি কিছু অন্যান্য উপকারী খাবারও খেতে হয়। কাজু বাদাম সে রকমই একটি পুষ্টিসমৃদ্ধ খাবার।

কাজু বাদামের রয়েছে অনেক গুণ। কাজু বাদাম আমাদের ক্যান্সারের ঝুঁকি কমায়। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে। এছাড়া কাজুতে প্রচুর জিংক থাকে বলে ইনফেকশনের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করতে সাহায্য করে। কাজু বাজাদে সেলেনিয়াম থাকে এবং ভিটামিন ই থাকে।

এ বাদামে উচ্চমাত্রার কপার থাকে তাই এনজাইমের কাজে, হরমোনের উৎপাদনে এবং মস্তিস্কের কাজে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। এছাড়াও লাল রক্ত কণিকার উতপাদনেও সাহায্য করে বলে অ্যানেমিয়া প্রতিরোধে সহায়তা করে।

হাড়ের মধ্যে ক্যালসিয়াম শোষণের জন্য আমাদের শরীরে দৈনিক ৩০০-৭৫০ গ্রাম ম্যাগনেসিয়াম প্রয়োজন। কাজুতে উচ্চমাত্রার ক্যালোরি থাকে, তাই দৈনিক ৫-১০টা কাজু বাদাম খাওয়াই যথেষ্ট।

যাদের অ্যালার্জির সমস্যা আছে এবং  মাইগ্রেনের সমস্যা হয় যাদের তাদের না খাওয়াই ভালো। বিভিন্ন ধরনের কাজু বাদাম পাওয়া যায় যেমন- লবণাক্ত, সিদ্ধ বা মশলাযুক্ত। হাইপারটেনশনের রোগীদের সল্টেড কাজু না খাওয়া ভালো।

সর্বোপরি কাজু বাদামে অসম্পৃক্ত চর্বি, উচ্চ মানের উদ্ভিদ প্রোটিন, আঁশ, খনিজ পদার্থ, টোকোফেরল, ফাইটোস্টেরল এবং ফেনোলিক উপাদান রয়েছে।

ক্লিনিক্যাল অনেক গবেষণায় দেখা যায়, কাজু বাদাম কার্ডিভ্যাসকুলারের বিভিন্ন রোগ প্রতিরোধ করে। নিয়ন্ত্রণ করে ওজন, ক্যানসারের ঝুঁকি, প্রদাহ এবং উচ্চ রক্তচাপসহ নানা শারীরিক জটিলতা।