বড় বিপদ থেকে বেঁচে গেলেন শোয়েব মালিক

অল্পের জন্য বড় ধরণের বিপদ থেকে রেহাই পেয়েছেন পাকিস্তান জাতীয় ক্রিকেট দলের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ক্রিকেটার শোয়েব মালিক। মঙ্গলবার স্বাগতিক নিউজিল্যান্ড ও সফরকারী পাকিস্তানের মধ্যকার পাঁচ ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের চতুর্থ ম্যাচে ব্যাট করার সময় মাথায় মারাত্মকভাবে বলের আঘাত লাগে শোয়েবের।

পাকিস্তানের ইনিংসের অর্ধেকের ইতি ঘটার পর বোলিং আক্রমণে ছিলেন নিউজিল্যান্ডের স্পিনাররা। এ কারণেই হয়ত মাথার হেলমেটটাকে একটু ‘ছুটি’ দিয়েছিলেন শোয়েব। তবে সেটিই তার জন্য দাঁড়ায় কাল হয়ে। ইনিংসের ৩২তম ওভারে মোহাম্মদ হাফিজের সাথে প্রান্ত বদল করছিলেন এক রানের বিনিময়ে। এ সময় দ্রুত থ্রো করতে গিয়ে কলিন মুনরোর ছুঁড়ে দেওয়া বল এসে আঘাত করে শোয়েব মালিকের মাথায়।

হেলমেট না থাকায় বল সরাসরি তার মাথায় আঘাত করে। আঘাত পেয়ে সাথে সাথেই মাটিতে লুটিয়ে পড়েন শোয়েব। সাথে সাথে মাঠে দৌড়ে আসেন ফিজিও ও চিকিৎসকরা। বেশ কিছুক্ষণ পর্যবেক্ষণ ও পরীক্ষণের পর আবারও খেলার জন্য উঠে দাঁড়ান তিনি।

অবশ্য আঘাত নিয়ে বেশিক্ষণ খেলতে পারেননি শোয়েব। নিজের নামের পাশে আর ৫ রান যোগ করেই সাজঘরে ফেরেন তিনি। পরবর্তীতে ফিল্ডিংয়েও নামেননি অভিজ্ঞ এই ব্যাটসম্যান।

তবে শোয়েবের আঘাত গুরুতর নয় বলে জানা যায়। যদিও ব্যাটিং শেষে ড্রেসিংরুমে ফেরার পর জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন তিনি। বেশ কিছুক্ষণ বিশ্রামে রাখার পর সুস্থ হন শোয়েব মালিক।

এ প্রসঙ্গে পাকিস্তান জাতীয় দলের ফিজিও ভিবি সিং বলেন,, ‘যখন মাঠে ছিলেন তখন ভালো ছিলেন। কিন্তু ড্রেসিং রুমে ফেরার পর কিছু সময়ের জন্য জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন। তাই তাকে বিশ্রামে রাখা হয়। তবে এখন তিনি ভালো আছেন।’

২০১৪ সালের ডিসেম্বরে ঘরোয়া ক্রিকেটে মাথায় বলের আঘাত পেয়ে মর্মান্তিক মৃত্যু ঘটে অস্ট্রেলিয়ার জাতীয় দলের ক্রিকেটার ফিলিপ হিউজের। এর পর থেকে কোনো ব্যাটসম্যানের মাথায় আঘাত পাওয়ার খবর শুনলেই ভীষণ শঙ্কা কাজ করে ক্রিকেট ভক্তদের মনে।—bdcrictime