১৭ বছর ধরে এক দেহে দুই বোন!

যুক্তরাষ্ট্রের কানেক্টিকাটের দুই বোন কারমেন আর লুপিতা এক দেহে ১৭ বছর ধরে জীবন যাপন করে আসছেন! জন্মের পরেই ডাক্তারা তাদের আলাদা করতে চেয়েছিল। কিন্তু এতে মৃত্যুঝুকি থাকায় শেষ পর্যন্ত তা আর করা হয়নি।

আর তাতেই কেটে গেছে দেখতে দেখতে তাদের জীবনের ১৭টি বছর। কারমেন আর লুপিতা নামে কনজয়েনড টুইনস বা সংযুক্ত যমজ দুই বোনের।

এই দুই কিশোরী অন্য ৫টা সমবয়সী কিশোরীর মতোই বন্ধুদের সঙ্গে আড্ডা দিতে চায়। দুটো ড্রাইভিং লাইসেন্স পেতে চায়। এমনিতে তাদের ভাবনা-চিন্তা বা কাজকর্ম মোটেই তেমন ব্যতিক্রমী নয়। ব্যতিক্রম শুধু তাদের শরীরে।

কারমেন আর লুপিতার একটি করে হৃদপিণ্ড, দু`টি করে হাত, একটি করে ফুসফুস থাকলেও তাদের পাজরের খাচা থেকে শরীরের বাকি অংশ কমন। তাদের পাচনতন্ত্র, এমনকী জননাঙ্গও কমন। চার বছর বয়সে তারা হাটতে শেখে। তারপর থেকে ১২ বছর তারা কদম কদম এগোতে শেখে।

এখনও ডাক্তারা আশাবাদী। ১৭ বছর পর এই দুই বোনকে নিয়ে আবারও নড়েচড়ে বসেছেন চিকিৎসকরা। চিকিৎসকরা বলছেন—এই সময়ে তাদের আলাদা না করলে বিপদ দেখা দিতে পারে দু`জনেরই।

তবে কারমেন ও লুপিতা আলাদা হতে রাজি নয়। ১৭ বছর ধরে তারা যে জীবন বহন করছেন হঠাৎ তাদের আলাদা করা হলে তারা মানসিকভাবে ভেঙে পড়বে বলে আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যমকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে জানিয়েছে তারা।

অস্ত্রোপচারে ভয় ছাড়াও আর একটা ভয় কারমেন আর লুপিতার পরিবারকে তাড়া করছে। এই পরিবারটি মেক্সিকো থেকে আগত। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের মেক্সিকান শরণার্থী-সংক্রান্ত বিরোধিতা তাদের তাড়া করে বেড়চ্ছে।

যে কোনও দিন আমেরিকা ছেড়ে চলে যাওয়ার আদেশ আসতে পারে, এই ভেবে চিন্তিত কারমেন আর লুপিতা আন্দ্রাদের পরিবার। আমেরিকা ছাড়লে সেখানকার চিকিৎসা পরিষেবা থেকে বঞ্চিত হবে কারমেন ও লুপিতা। সেই বিপদের দিনে কী হবে ভেবে শঙ্কিত তাদের পরিজন।