হাই ব্লাড প্রেসারে লাউ !

লাউ মূলত: গ্রীষ্ম ও বর্ষা ঋতুর সবজি, তবুও শীতকালেও লাউ হয়, লম্বা ও গোল- এই দুই আকারের লাউ বাজারে পাওয়া যায়, এর বিজ্ঞান সম্মত নাম হলো লাজেনারিয়া ভালগারিস…
পুষ্টিগুণ : পুষ্টিগুনের নিরিখে প্রতি ১০০ গ্রাম লাউ এর মধ্যে আছে-কর্বোহাইড্রেড ২.৫গ্রাম, প্রোটিন ০.২ গ্রাম, ফ্যাট ০.১গ্রাম, আশ ০.৬ গ্রাম, লোহা ০০ মিগ্রা, ভিটামিন এ ০০ আই ইউ, অক্সালিক এসিড০০ মিগ্রা, ক্যালসিয়াম ২০ মিগ্রা, ফসফরাস ১০ মিগ্রা, পটাসিয়াম ৮৭ মিগ্রা,থায়ামিন ০০ মিগ্রা, রিবোফ্ল্যাবিন ০০ মিগ্রা, ভিটামিন সি ৬ মিগ্রা, নিকোটিনিকএসিড ০.২ মিগ্রা,
উপকারিতা (Benefits) : লাউ এর মধ্যে খাদ্য উপাদানগুলি তুলনামূলকভাবে কম থাকে, এতে ভিটামিন এ থাকে না, পুষ্টির অভাব মেটাতে মাঝে মধ্যে অন্য সবজি না পাওয়া গেলে লাউ খেতে পারেন, এতে অধিক পরিমানে পটাশিয়াম থাকায় উচ্চ রক্তচাপ কমায়, তাই যারা উচ্চ রক্তচাপে ভুগছেন এমন রোগীদের জন্য লাউ অত্যন্ত উপকারী, লাউ হলো ভেষজ গুণ সম্পন্ন সবজি, গরমকালে লাউ খেলে শরীর ঠান্ডা থাকবে এবং দেহে পানির ঘাটতি মেটাবে, লাউ হলো বলকারক, আলসার, কোষ্ঠকাঠিন্য ও অর্শ রোগে যারা ভুগছেন তারা লাউ খেলে উপকার পাবেন,
সাবধানতা : আবার যারা ঠান্ডা ও কফের ধাত আছে তারা লাউ এড়িয়ে চলুন।
ব্যবহার পদ্ধতি : লাউ সেদ্ধ, তরকারী, শুক্তু অথবা দলের সঙ্গে রান্না করে খেতে পারেন।।