সুজনের কথার উল্টো সুর তামিমের কন্ঠে

সোমবার (১২ ফেব্রুয়ারি) মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে সংবাদ মাধ্যমের মুখোমুখি হোন সুজন। সেখানে বলেন, ‘আমার নিজস্ব মতামত, আমি আর কাজ করতে আগ্রহী নই। বাংলাদেশের ক্রিকেটের সাথে কাজ করতে ইচ্ছে করছে না। এই জায়গাটা নোংরা লাগতেছে। আমাদের দেশে কেউ কাজ করলেই বড় সমস্যা!’ পাশাপাশি সুজন প্রশ্ন তুলেছিলেন, মিডিয়া ক্রিকেটে উন্নতির পথ আটকে রাখে কিনা?

এদিকে গতকাল সুজনের মিডিয়া প্রসঙ্গে করা মন্তব্যে তামিম বলেন, “উনি (সুজন)  কি বলেছেন, সেটায় আমার না যাওয়াই ভালো হবে। আমি এতটুকু বলতে পারি, সমালোচনা সব জায়গায় কম-বেশি হয়ই। আমার কাছে দল হিসেবে, ম্যানেজমেন্ট হিসেবে আমরা কতটা শক্ত থাকতে পারছি, সেটিই সবচেয়ে বড় কথা।”

তামিম মনে করেন, ক্রিকেটের জন্য মিডিয়া অনেক গুরুত্বপূর্ণ। পাশাপাশি এতোকিছু না ভেবে নিজের কাজেই মনোযোগ দেওয়াকে শ্রেয় মনে করেন তামিম, “মিডিয়াও ক্রিকেটের খুব গুরুত্বপূর্ণ অংশ, বিশেষ করে এই যুগে। আমার কথা হলো, আমরা আমাদের কাজ করব, মিডিয়া তাদের কাজ করবে। আমাদের উচিত নিজেদের কাজেই মনোযোগ দেওয়া।”

গতকাল (১৩ ফেব্রুয়ারি) অনুশীলন শেষে সংবাদ সম্মেলনে আসেন জাতীয় দলের অভিজ্ঞ ক্রিকেটার তামিম ইকবাল খান। মিডিয়া প্রসঙ্গে বামহাতি এই ব্যাটসম্যানের কন্ঠে ছিল ভিন্ন সুর।

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ঢাকা টেস্টে ২১৫ রানের বিশাল ব্যবধানে হেরেছিল বাংলাদেশ। যে মাঠে ইংল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়েছিল টাইগাররা। সেই মাঠেই শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে এমন পরাজয় মেনে নিতে পারে নি সমর্থকরা। তাই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে উঠে সমালোচনার ঝড়।

প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়াতেও ছিল আলোচনা-সমালোচনা। সুজন মনে করেন, কাজ করতে গেলে জয় কিংবা পরাজয় দুটিই আসবে। তবে এমন উগ্র সমালোচনায় কাজ করতে আগ্রহী নন তিনি।