নারী দিবস নিয়ে তারকার ভাষ্য

৮ মার্চ আন্তর্জাতিক নারী দিবস। বিশ্বের প্রত্যেকটি দেশের মতো আমাদের দেশেও নানা আনুষ্ঠানিকতার মধ্যে দিয়ে পালিত হচ্ছে আন্তর্জাতিক নারী দিবস। নারী দিবসকে অনেকেই অনেকভাবে পালন করে থাকেন। ঢাকাই বিনোদন জগতের তারকারা কিভাবে এই দিনটিকে মূল্যায়ন করেন? কালের বিবর্তন ও নারীর সমান অধিকার নিয়ে বিশেষ এই দিবসে কয়েকজন জনপ্রিয় তারকার ভাবনা ব্রেকিংনিউজ পাঠকদের জন্যে তুলে ধরা হলো-

ফেরদৌসী মজুমদার

নারী পরিচয় আমার গর্ব। আন্তর্জাতিক নারী দিবসে বিশ্বের সব নারীর মঙ্গল কামনা করছি। আমি মনে করি, নারী ও পুরুষ আলাদা সত্তা নয়, সবাই মানুষ। তারপরও একজন নারীর জীবনে প্রতিবন্ধকতার সীমা নেই। সামাজিক অনেক ক্ষেত্রে তারা নিজের অধিকার থেকে এখনও বঞ্চিত। এ অবস্থা থেকে নারীকে নিজ চেষ্টায় সব বাধা অতিক্রম করে সাফল্য অর্জন করতে হবে। সে ক্ষেত্রে প্রতিটি দিনই সংগ্রামের।

বিপাশা হায়াত

সমাজে সম অধিকার প্রতিষ্ঠায় যুগের পর যুগ ধরে নারীরা চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। এই দিনটি আসলে নারীদের অধিকার এবং সম্মান সম্পর্কে আমাদের মনে করিয়ে দেয়। সমাজের প্রতিটি স্তরে নারীদের অবদান অনস্বীকার্য। আসলে বছরের প্রত্যেকটি দিনই নারীর জন্য। একদিন নারী দিবস উদযাপন করে পার করলাম, বিষয়টা তা না।

পরীমণি

নারী স্বাধীনতা এখন আগের চেয়ে বেশি। এখন নারীরা নানা ধরনের কাজ করে এগিয়ে যাচ্ছে। তবে এখনো অনেক কিছুই নারীদের জন্য নিরাপদ নয়। তাই লোক দেখানো দিবস না হয়ে এর সঠিক মূল্যায়ন হওয়া উচিত।

বিজরী বরকতউল্লাহ

নারী দিবস আসলে বছরের একদিন হয়, প্রতিদিনই হওয়া উচিত। আর এই প্রত্যেকটি দিনকে স্মরণ রাখতেই আসলে বছরের একটি দিন পালিত হয় নারী দিবস। প্রত্যেকদিনই নারীকে সচেতন হতে হবে, দেখতে হবে সে তার নিজের অধিকারগুলো ঠিক মতো পাচ্ছে কিনা। আর এই চর্চাটা শুরু হবে একেবারে ঘর থেকে। সম্মান করতে হবে মা, বোন, ভাবী, শাশুড়িসহ ঘরের সকল নারী সদস্যকে। তখনই নারী দিবসের আসল তাৎপর্য বলে আমি মনে করি।’

নুসরাত ইমরোজ তিশা

অনেক ক্ষেত্রেই নারী অধিকার এখন ইতিবাচক হয়ে এসেছে। এসব ভাবনা অনেকটা এগিয়ে গেলেও এখনও আমাদের সমাজে নারীদের অধিকার প্রতিষ্ঠা হয়নি। এটা ঠিক যে অধিকার কেউ কাউকে দেয় না। তবে অধিকার আদায় করার জন্য সামাজিক ভাবে একটা সুস্থ চিত্র দাড় করানো দরকার। আমার মনে হয় এই কারনেই নারী দিবসব অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ।