হতাশা কমাতে খাবার

ছোটখাটো যে কোন বিষয় নিয়ে হতাশা এখন মানুষের জীবনে বদভ্যাসে পরিণত হয়েছে। যদিও গবেষকরা বলছেন সামান্য উদ্বেগ আপনার স্মৃতিশক্তিকে ফুরফুরে করে দিতে পারে। তবে সাবধান অতিরিক্ত হয়ে গেলে হিতে বিপরীতও হতে পারে।

চিন্তা করার কিছু নেই- মন খারাপ, অ্যাংজাইটি ও ডিপ্রেশনের মতো ভয়ংকর রোগ দূরে রাখতে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ খাবার খেলেই সব হতাশা নিমিশেই দূর হয়ে যাবে।

তাই চেরি, আঙুর ও সবুজ শাকসবজির মতো খাবার বেশি করে খেতে হবে।

মাছ: মাছে উপস্থিত ওমেগা থ্রি ফ্যাটি এসিড, ভিটামিন বি, বি৬ ও বি১২ মানব শরীর গঠনে বিশেষ ভূমিকা পালন করে। এ উপাদানগুলো মানসিক হতাশা থেকে মুক্তিতে নানাভাবে সাহায্য করে। বিশেষ করে বাচ্চাদের।

সাইট্রাস ফল: পাতিলেবু, কমলালেবুর মতো সাইট্রাস ফলে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি, অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট ও প্রাকৃতিক সুগার থাকে, যা স্ট্রেস হরমোনের ক্ষরণ কমানোর পাশাপাশি মানসিক অবসাদ দূরে রাখে।

টমেটো: এতে উপস্থিত লাইকোপেন নামক এক ধরনের অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট মন খারাপকে গড়া থেকে তুলে ফেলে। যাদের খুব স্ট্রেসফুল কাজ করতে হয়, তাদের প্রতিদিন একটা করে কাঁচা টমেটো খেতে হবে।

পালংশাক: নিয়মিত পালংশাক খেলে স্ট্রেস হরমোনের ক্ষরণ কমে।

ভিটামিন ডি: এর ঘাটতি দেখা দিলে মুড সুইং ও ডিপ্রেশনের মতো সমস্যা মাথাচাড়া দিয়ে ওঠে। এ কারণে নিয়মিত কিছু সময় গায়ে রোদ লাগানোর পরামর্শ দিয়ে থাকেন চিকিৎসকরা।

এছাড়া মাশরুম, সয়ামিল্ক, ডিমে প্রচুর ভিটামিন ডি থাকে।

নারিকেল: নারিকেলে উপস্থিত বেশ কিছু উপকারী ফ্যাট শরীরে প্রবেশ করার পর মস্তিষ্কের ভেতর ‘ফিল গুড’ হরমোনের ক্ষরণ বাড়িয়ে দেয়। এতে মানসিক অবসাদের প্রকোপ কমানোর পাশাপাশি বুদ্ধি ও স্মৃতিশক্তির উন্নতি ঘটে।