উন্নত চিকিৎসার জন্য এবার অস্ট্রেলিয়ায় গেলেন সাকিব

 

ইনজুরির কারণে নেই মাঠে। তবে দলকে সমর্থন ও সাহস জোগাতে ছুটে গিয়েছিলেন কলম্বোয়। সেখানে দলের সাথে অবস্থানও করেছেন বেশ কিছু সময়। এরপর আবারও অস্ট্রেলিয়ার উদ্দেশে ছুটেছেন সাকিব আল হাসান। উদ্দেশ্য- চিকিৎসা গ্রহণ।

অস্ট্রেলিয়া যাওয়ার আগে সবার কাছে দোয়া চেয়েছেন সাকিব। নিজের অফিশিয়াল ফেসবুক পেইজে সাকিব উল্লেখ করেন, ‘অল্প কিছুক্ষণের জন্য হলেও দলের খেলোয়াড়দের সঙ্গে কিছু ভালো সময় কাটালাম। যদিও উন্নত চিকিৎসার জন্য কিছুক্ষণ বাদেই অস্ট্রেলিয়া চলে যেতে হচ্ছে। সকলেই আমার জন্য দোয়া করবেন। খুব শিগগিরই যেন সুস্থ হয়ে দলের সঙ্গে যোগ দিতে পারি।’

আঙ্গুলের চোটের জন্য নিদাহাস ট্রফি ২০১৮ আসরে খেলা হচ্ছে না সাকিব আল হাসানের। শুরুতে স্কোয়াডে থাকলেও ইঞ্জুরি থেকে সেরে না উঠায় দল থেকে ছিটকে গেছেন গুরুত্বপূর্ণ এ সিরিজ থেকে। নিয়মিত অধিনায়ক দল থেকে ছিটকে গেলেও আসরের শুরুর সময়টায় দলের পাশে থেকেছেন। ৬ মার্চ বাংলাদেশ দল শ্রীলঙ্কার উদ্দেশে যাত্রা করার পর সাকিবও উড়াল দেন শ্রীলঙ্কায়। অবশ্য সেখান থেকে সাকিবের অস্ট্রেলিয়া যাত্রার শিডিউল করা ছিল আগে থেকেই।

ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে চোট পেয়ে বেশ কদিন ধরে মাঠের বাইরে বাংলাদেশ দলের টেস্ট ও টি-২০ অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। ঐ চোটের কারণে সাকিব পরে মিস করেছিলেন শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টেস্ট ও টি-২০ সিরিজ। দুই সিরিজে তার বদলে দলকে নেতৃত্ব দিয়েছেন মাহমুদউল্লাহ্‌ রিয়াদ।

তবে আশা করা হচ্ছিল, ৬ মার্চ শুরু হয়া তিন জাতির টি-২০ সিরিজ নিদাহাস ট্রফিতে খেলতে পারবেন সাকিব। সাকিবের পুনর্বাসন প্রক্রিয়া অনুযায়ী সেটিই হওয়ার কথা ছিল। তবে অপ্রত্যাশিতভাবে আঙুল সেরে না ওঠায় নির্ধারিত সময়ে মাঠে নামার মতো ফিটনেস তৈরি হয়নি সাকিবের। আর তাই প্রথমে স্কোয়াডে রাখলেও এবার সাকিবকে স্কোয়াড থেকে বাদ দিয়ে নতুন খেলোয়াড় নিতে বাধ্য হয়েছে টিম ম্যানেজমেন্ট।

উল্লেখ্য, ঘরের মাঠে ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনাল ম্যাচে শ্রীলঙ্কার ইনিংসের ৪১তম ওভারে মুস্তাফিজুর রহমানের করা প্রথম বলে শ্রীলঙ্কান অধিনায়ক দীনেশ চান্দিমালকে রান আউটের জন্য থ্রো করার চেষ্টা করেন সাকিব। এ সময় বাম হাতের আঙুলের নিচে ব্যাথা পান তিনি। ব্যথা যে মারাত্মক ছিল তা বোঝা যায় সাকিব একটু পরই মাঠ ছেড়ে গেলে। শেষমেশ আর মাঠেই নামা হয়নি তার, দলও খেলেছে একজন ব্যাটসম্যান কম নিয়ে। পরবর্তীতে জানা যায়, সাকিব আল হাসানের আঙুলে লেগেছে মোট চারটি সেলাই।—.bdcrictime