বাংলাদেশ ম্যাচে পরীক্ষা-নিরিক্ষার সুযোগ নেই ভারতের

শ্রীলংকার বিপক্ষে বাংলাদেশ রেকর্ড করেই জিতেছে। আছে আত্মবিশ্বাসের তুঙ্গে। আগামীকাল বুধবার ভারতের বিপক্ষে জিতলে ফাইনালে যাওয়ার পথটা বেশ মসৃণ হয়ে যাবে টাইগারদের। আর পরপর দুই ম্যাচ জয়ী ভারতের সামনে বাংলাদেশের বিপক্ষে জিতলেই আছে ফাইনাল নিশ্চিত করার সুযোগ। শ্রীলংকার বিপক্ষে বাংলাদেশ যেভাবে জিতেছে তাতে ভারতের সামনে বাংলাদেশের বিপক্ষে খেলোয়াড় যাচাই-বাছাইয়ের কোন সুযোগ নেই।

ভারত এখনো তাদের বেঞ্চে থাকা দিপক হুদা, আকসার প্যাটেল এবং মোহাম্মদ সিরাজকে মাঠে নামাতে পারেনি। বাংলাদেশের বিপক্ষে তাদেরকে যে একটু যাচাই-বাছাই করিয়ে নেবে সেই ফুসরত পাচ্ছে না ভারত। কারণ যদি প্রত্যেক দল দুটি করে ম্যাচ জেতে তবে নেট রান রেট ফাইনালে যাবার পথে কারণ হয়ে দাঁড়াবে। ভারতের নেট রান রেট ভালো হলেও বাংলাদেশের বিপক্ষে নতুন খেলোয়াড় নামানোর ভরসা পাচ্ছে না।

এমনিতে ভারত শিবিরে দলের অধিনায়ক রোহিত শর্মার সাম্প্রতিক ফর্ম বেশ চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। তিন ম্যাচেই সুবিধে করতে পারেননি এই ওপেনার। তার উপরে জয়দেভ উদানকাতরা তিন ম্যাচেই বোলিংয়ে ছিলেন বেশ খরুচে। বাংলাদেশের বিপক্ষে প্রথমে দুই উইকেট তুলে নিলেও রান চেক দিতে পারছেন না এই বামহাতি পেসার। সব মিলিয়ে ভারত শিবিরেও আছে দোটানা ভাব।

প্রথম দুই ম্যাচে খারাপ খেলায় ভারতের তরুণ ব্যাটসম্যান রিশভ পান্তেকে শ্রীলংকার বিপক্ষে বসিয়ে রাখা হয়েছে। আগামী ম্যাচে বাংলাদেশের বিপক্ষেও থাকবেন না তিনি। তার উপরে ভারতের টিম ম্যানেজমেন্টের পক্ষ থেকে রোহিত শর্মাকে চারে ব্যাট করানোর কথা ভাবা হচ্ছে। আইপিএলে যেখানে তিনি ব্যাট করেন। আর ওপেনিংয়ে দারুণ ফর্মে থাকা শেখর ধাওয়ানের সঙ্গী হিসেবে ভাবা হচ্ছে কেএল রাহুলকে।

তবে ভারতের শিবিরে এখন বাংলাদেশের বোলিং লাইন আপের চেয়ে বেশি চিন্তার বিষয় বাংলাদেশের ব্যাটিং। কারণ ভারত বাংলাদেশের ব্যাটিংকে ‘আনপ্রেডিক্টেবল’ বলে মনে করছে। তামিম, সৌম্য, লিটন দাস কিংবা মুশফিকুররা প্রথম ম্যাচে ভারতের বিপক্ষে ব্যর্থ হলেও সামনের ম্যাচে উদানকাতরা, শারদুল ঠাকুরদের বেশ পরীক্ষা নেবে বলেই মনে করছে ভারত।-সমকাল।