সুস্বাদু কই-দই 

মৎস্যপ্রিয় বাঙালির প্রাণের দোসর হল কই। কিন্তু কই মানে শুধুই কি নিত্যনৈমিত্তিক তেল-ঝাল অথবা সরষে দিয়ে সাধারণ কোনও পদ? মোটেই তা নয়।

বরং এ বার সেই সমস্ত একঘেয়েমি কাটিয়ে প্রিয়জনদের পাতে দিন ভিন্ন স্বাদের কই। কইয়ের একেবারে ভিন্ন স্বাদের সুস্বাদু খাবার কই দই।

উপকরণ:

কই মাছ ৪টি,

পেঁয়াজ ২টি,

টক দই ১ কাপ,

লবঙ্গ ৩-৪টি,

তেজপাতা ২টি,

এলাচ ২-৩টি,

দারচিনি ১টি,

হলুদ গুঁড়ো ১ চা চামচ,

আদা বাটা আধ চা চামচ,

জিরে গুঁড়ো ১ চা চামচ,

ধনে গুঁড়া আধ চা চামচ,

মরিচ গুঁড়া আধ চা চামচ,

লবন স্বাদ মতো,

চেরা কাঁচা লবন ৪-৫টি,

সরষের তেল পরিমাণ মতো,

চিনি আধ চা চামচ,

ঘি আধ চা চামচ,

ধনেপাতা কুচি সামান্য।

প্রণালী: কই মাছ ভাল করে ধুয়ে লবন আর হলুদ মাখিয়ে রাখুন। কড়াইয়ে সরষের তেল ভাল করে গরম করে নিন। সেই তেলে মাছগুলো হাল্কা করে ভেজে তুলে রাখুন। মাছ ভাজার তেলেই এ বার একে একে লবঙ্গ, তেজপাতা, এলাচ এবং দারচিনি ফোড়ন দিন। তাতে পেঁয়াজ কুচি এবং চিনি দিন।

পেঁয়াজ হাল্কা ভাজা হয়ে তার গায়ে সোনালি রং ধরলে একে একে হলুদ গুঁড়া, আদা বাটা, লবন গুঁড়া, ধনে গুঁড়া, জিরে গুঁড়া এবং চেরা কাঁচা মরিচ দিয়ে দিন। এ বার কড়াইয়ে সামান্য পানি দিয়ে মশলা কষতে থাকুন। অন্য একটি বাটিতে টক দই ভাল করে ফেটিয়ে রাখুন।

মশলা থেকে তেল বেরোতে শুরু করলে তাতে ফেটানো টক দই দিয়ে দিন। এ বার সামান্য লবন দিয়ে আঁচ কমিয়ে নিন। মশলা ভাল ভাবে নাড়তে থাকুন। তার পর আলতো হাতে মাছগুলো ঝোলে দিয়ে ৮-১০ মিনিট ফুটতে দিন। গ্রেভি ঘন হয়ে এলে উপর থেকে ঘি আর ধনেপাতা কুচি ছড়িয়ে নামিয়ে নিন। ভাতের সঙ্গে গরম গরম পরিবেশন করুন দই কই।