দুই বাংলায় সমানতালে এগুচ্ছেন ফেরদৌস

২৬ বছর বয়সে ১৯৯৮ সালে ‘হঠাৎ বৃষ্টি’ ছবিতে নায়ক হিসেবে পরিচিতি পান ফেরদৌস আহমেদ। কিন্তু এর আগে ফেরদৌস প্রথম ক্যামেরার সামনে আসেন ১৯৯৭ সালে ছটকু আহমেদ পরিচালিত বুকের ভিতর আগুন ছবির মাধ্যমে। সালমান শাহের মৃত্যুর পর ছটকু আহমেদ ছবির গল্পে কিছুটা পরিবর্তন করে ফেরদৌসকে কাজ করার সুযোগ দেন।

এরপর অসংখ্য জনপ্রিয় ছবিতে অভিনয় করা ৪৫ বছর বয়সী এই চিত্রনায়ক এখনো তারুণ্য ধরে সমানতালে অভিনয় করে যাচ্ছেন। ওপার বাংলাতেও বেশকিছু ছবিতে তিনি অভিনয় করেছেন।

সম্প্রতি শেষ করলেন মাহমুদ দিদারের বিগ বাজেটের ছবি বিউটি সার্কাস। ফেরদৌস বলেন, এ ছবিতে অনেক বড় একটি সেটে কাজ হয়েছে। এত বড় সেট আমাদের ফিল্মে অনেক দিন পর দেখলাম।

এদিকে তার ‘গন্তব্য’ নামে একটি ছবির কাজ শেষ পর্যায়ে রয়েছে। ছয় বন্ধু মিলে একটি চলচ্চিত্র নির্মাণ এবং সেই চলচ্চিত্রটি সারাদেশে প্রদর্শন করানোর ঘটনা নিয়ে গড়ে উঠেছে এ ছবির কাহিনী। এটি পরিচালনা করেছেন অরণ্য পলাশ।

এদিকে তার অভিনয়ে চলতি বছর বেশকিছু ছবি সামনে মুক্তি পাবে বলে জানান ফেরদৌস। তিনি বলেন, এ বছরে বেশকিছু ভালো ছবি প্রেক্ষাগৃহে দর্শক দেখতে পাবেন। এরমধ্যে ‘পোস্ট মাস্টার ৭১’, ‘গন্তব্য’, ‘মেঘকন্যা’ ও ‘পবিত্র ভালোবাসা’-এই চারটি ছবির শুটিংসহ সব কাজ শেষ। ছবিগুলো খুব শিগগিরই মুক্তি পাবে।

এছাড়া কলকাতার দুটি ছবিও রয়েছে; যা এখন মুক্তির অপেক্ষায় আছে। ছবি দুটির নাম হচ্ছে ‘সাঁঝের জোনাকি’ ও ‘ওরা রোদ্দুর থেকে সরে এসেছিল’।

‘হঠাৎ বৃষ্টি’, ‘সন্তান যখন শত্রু’, ‘কখনো মেঘ কখনো বৃষ্টি’, ‘সবার উপরে প্রেম’, ‘বউ শাশুড়ির যুদ্ধ’, ‘মেহের নেগার’, ‘নন্দিত নরকে’, ‘খায়রুন সুন্দরী’, ‘রানীকুঠির বাকি ইতিহাস’, ‘গঙ্গাযাত্রা’, ‘গোলাপি এখন বিলেতে’, ‘কুসুম কুসুম প্রেম’, ‘গেরিলা’, ‘এক কাপ চা’সহ প্রায় শতাধিক ছবিতে অভিনয় করেছেন এই সুদর্শন অভিনেতা।