প্রথম বাংলাদেশী হিসেবে ৮ উইকেট নিয়ে বিশ্ব রেকর্ড গড়লেন মিশু!

প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে অভিষেকে পাঁচ উইকেট নিয়ে নিজের সামর্থ্যটা জানান দিয়েছিলেন ইয়াসির আরাফাত। লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে নিজের দ্বিতীয় ম্যাচে গড়লেন ইতিহাস।

বাংলাদেশের প্রথম বোলার হিসেবে লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে আরাফাত নিয়েছেন ৮ উইকেট। ক্রিকেট ইতিহাসের মাত্র একাদশ বোলার হিসেবে ৮ উইকেট নেওয়ার কৃতিত্ব দেখালেন তিনি।

ফতুল্লার খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়ামে বুধবার গাজী গ্রুপ ক্রিকেটোর্সের আরাফাতের দাপটে ২৬ ওভার ১ বলে মাত্র ১১৩ রানে গুটিয়ে যায় আবাহনী। চলতি লিগে নিজের প্রথম ম্যাচ খেলতে নেমে ৪০ রানে ৮ উইকেট নেন ডানহাতি পেসার আরাফাত।

২০১৬ সালের সেপ্টেম্বরে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে অভিষেক হয় তার। গত বছর এপ্রিলে খেলেন লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে নিজের প্রথম ম্যাচ। ফতুল্লাতেই সেই ম্যাচে ব্রাদার্স ইউনিয়নের হয়ে আবাহনীর বিপক্ষে ৬ ওভারে ৬৬ রান দিয়ে নিয়েছিলেন একটি ১ উইকেট। ১১ মাস পর সেই দলকে একাই গুঁড়িয়ে দিলেন।

তৃতীয় ওভারে সাইফ হাসানকে ফিরিয়ে শিকার শুরু করেন ১৯ বছর বয়সী ডানহাতি পেসার। এক বল পর ফিরিয়ে দেন নাজমুল হোসেন শান্তকে। পরের ওভারে ফিরে আবার জোড়া আঘাত। এবার বিদায় নেন নাসির হোসেন ও মোসাদ্দেক হোসেন।

চার উইকেট নিয়ে যেন খানিক বিরতি নেন আরাফাত। আবার শিকার শুরু করেন এক ওভারে তিন উইকেট নিয়ে। যার শুরু মাশরাফি বিন মুর্তজাকে দিয়ে। বাংলাদেশের ওয়ানডে অধিনায়ক তার পঞ্চম শিকার। সেই ওভারেই ফিরে যান সানজামুল ইসলাম ও আরিফুল ইসলাম।

মনন শর্মাকে ফিরিয়ে আবাহনীকে গুটিয়ে দেন আরাফাত। এই উইকেট নিয়ে তরুণ পেসার গড়েন দুটি রেকর্ড।

লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে বাংলাদেশের সেরা বোলিংয়ের রেকর্ড ছিল আব্দুর রাজ্জাকের অধিকারে। ২০০৩-০৪ মৌসুমে ঢাকায় জিম্বাবুয়ে ‘এ’ দলের বিপক্ষে ১৭ রানে ৭ উইকেট নিয়েছিলেন বাঁহাতি এই স্পিনার।

ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগে সেরা বোলিংয়ের রেকর্ড ছিল ব্রাদার্সের শন উইলিয়ামসের অধিকারে। ২০১৩/১৪ মৌসুমে জিম্বাবুয়ের এই বাঁহাতি স্পিনার কলাবাগান ক্রিকেট অ্যাকাডেমির বিপক্ষে ২৫ রানে নিয়েছিলেন ৭ উইকেট।

চোটের জন্য সবশেষ অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে খেলা হয়নি আরাফাতের। ডানহাতি পেসার মাঠে ফিরে নিজের প্রথম ম্যাচে জানান ছিলেন, আরও বড় মঞ্চের জন্য তৈরি হচ্ছেন তিনি।