কুমিল্লায় হত্যা মামলায় খালেদা জিয়ার জামিন নামঞ্জুর

কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে বাসে পেট্রোল বোমা হামলা চালিয়ে আটজন হত্যা মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জামিনের আবেদন নামঞ্জুর করে দিয়েছেন আদালত।

কুমিল্লার ৫নং আমলি আদালতের বিচারক সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোস্তাইন বিল্লাহ জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে দেন।

মামলায় খালেদা জিয়ার আইনজীবি এ্যাডভোকেট কাইমুল হক রিংকু শুনানি শেষে সাংবাদিকদের একথা জানান।

এর আগে ৮ এপ্রিল সাবেক প্রধানমন্ত্রীকে কুমিল্লার পাঁচ নম্বর আমলি আদালতে হাজির করতে পরোয়ানা (প্রোটেকশন ওয়ারেন্ট) জারি করেন আদালত।

গত ৮ ফেব্রুয়ারি থেকে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় পাঁচ বছরের দণ্ডিত খালেদা জিয়া ঢাকার পুরাতন কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দি রয়েছেন।

এর মধ্যে গত ১২ মার্চ খালেদা জিয়াকে চৌদ্দগ্রামে বাসে পেট্রলবোমা হামলা মামলায় গ্রেফতার দেখাতে কুমিল্লার ৫ নম্বর আমলি আদালতে আবেদন করেন ঢাকার গুলশান থানার ওসি।

ওই সময় আদালত ২৮ মার্চ খালেদা জিয়াকে ঢাকা থেকে কুমিল্লার আদালতে হাজির করতে পরোয়ানা জারি করেন।

তবে ২৮ মার্চ খালেদা জিয়াকে হাজির করা হয়নি। এ কারণে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাকর্তৃপক্ষকে কারণ দর্শাতে বলেন কুমিল্লার ৫ নম্বর আমলি আদালতের বিচারক কাজী আরাফাত।

মামলার বিবরণে জানা গেছে, ২০১৫ সালের ৩ ফেব্রুয়ারি ভোরে ২০-দলীয় জোটের অবরোধের সময় চৌদ্দগ্রামের জগমোহনপুরে একটি বাসে পেট্রলবোমা ছুড়ে মারে দুর্বৃত্তরা। এতে আট যাত্রী দগ্ধ হয়ে মারা যান, আহত হন ২০ জন। এ ঘটনায় চৌদ্দগ্রাম থানার এসআই নুরুজ্জামান বাদী হয়ে ৭৭ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন। মামলায় খালেদা জিয়াসহ বিএনপির শীর্ষস্থানীয় ছয় নেতাকে হুকুমের আসামি করা হয়।

৭৭ আসামির মধ্যে তিনজন মারা যান, পাঁচজনকে চার্জশিট থেকে বাদ দেয়া হয়েছে। খালেদা জিয়াসহ অপর ৬৯ জনের বিরুদ্ধে কুমিল্লা আদালতে তদন্তকারী কর্মকর্তা ডিবির পরিদর্শক ফিরোজ হোসেন চার্জশিট দাখিল করেন।