এশাকে নিয়ে যা বললেন তার বাবা

কোটা পদ্ধতি সংস্কারের দাবিতে আন্দোলনরত ছাত্রীদের ওপর নির্যাতন ও এক ছাত্রীর পায়ের রগ কেটে দেয়ার অভিযোগে বহিষ্কৃত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কবি সুফিয়া কামাল হল ছাত্রলীগের সভাপতি ইফফাত জাহান এশার বাড়ি ঝিনাইদহে।ছাত্রলীগ নেত্রী এশা ঝিনাইদহ শহরের আরাপপুরের মো: ইসমাইল হোসেন বাদশার মেয়ে। বাদশা জেলা দায়রা জজ আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি)।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, এশা ঝিনাইদহ সরকারি বালিকা বিদ্যালয় থেকে ২০১০ সালে মানবিক বিভাগ থেকে এসএসসি ও ২০১২ সালে ঝিনাইদহ সরকারি নুরুন্নাহার মহিলা কলেজ থেকে মানবিক বিভাগ নিয়ে এইচএসসি পাস করেন। এরপর ২০১২-২০১৩ শিক্ষাবর্ষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে দর্শন বিভাগে ভর্তি হন। বর্তমানে তিনি মাস্টার্সের শিক্ষার্থী।

ছাত্রলীগ নেত্রী এশার বাবা ইসমাইল হোসেন বাদশা বলেন, আমার মেয়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ করা হচ্ছে তা সব মিথ্যা, ভুয়া। এটা টোটালি একটা ষড়যন্ত্র।

ভিসির বাসভবনে যারা হামলা করে মিথ্যা রটিয়েছে এটাও এমন মিথ্যা অভিযোগ দেওয়া হয়েছে তার মেয়ের বিরুদ্ধে বলে দাবি করেন এশার বাবা।

এ ঘটনার জেরে এরই মধ্যে ইফফাত জাহান এশাকে ছাত্রলীগ থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। একই সঙ্গে তাকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকেও বহিষ্কার করা হয়েছে। গঠন করা হয়েছে তদন্ত কমিটি।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. মো. আখতারুজ্জামান আনুষ্ঠানিকভাবে বহিষ্কার করা ও তদন্ত কমিটি গঠনের কথা জানান।

আহত ছাত্রীদের মধ্যে উদ্ভিদবিজ্ঞান বিভাগের মোরশেদা খানমের অবস্থা গুরুতর বলে জানা গেছে। আহত অন্য ছাত্রীদের মধ্যে আছেন ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের শারমীন সুলতানা কনা, গ্রন্থাগার ব্যবস্থাপনা বিভাগের আফিফা আকতার রিমু ও ভূতত্ত্ব বিভাগের রিতু আক্তার।-নিউজ২৪