শেষ সময়ের পেনাল্টিতে সেমিতে রিয়াল

একটা পেনাল্টি নিতে আট মিনিট সময় লাগল। যোগ করা সময়ে পাওয়া পেনাল্টি থেকে গোল করে সেমিফাইনাল নিশ্চত করল রিয়াল মাদ্রিদ। এরআগে ঘটে গেছে অনেক কিছু। ম্যাচের অতিরিক্ত সময় যোগ হয়েছে তিন মিনিট। ঠিক সেই সময়ে ভাসকেসকে গোলের সামনে ফাউল করায় পেনাল্টি পেল রিয়াল। রেফারির দেওয়া পেনাল্টি মানতে না পারায় বিতর্কে জড়ালেন বুফন। রেফারি  তাকে দিয়ে দিলেন লাল কার্ড। বদলি গোলরক্ষকে পেনাল্টি থেকে গোল দিতে ভুল করেননি রোনালদো।

গোল করেই সিআরসেভেন জার্সি খুলে শুরু করলেন বুনো উল্লাস। তার আগে অবশ্য পুরো ম্যাচ নিয়ন্ত্রন করেছে জুভরা। ম্যাচের দ্বিতীয় মিনিটেই গোল করেন মানজুকিচ। এরপর ৩৭ মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুন করেন তিনি। ২-০ ব্যবধানে এগিয়ে থেকে প্রথমার্ধ শেষ করে জুভরা। দ্বিতীয়ার্ধে এসেই আবার বারবার গোলের সুযোগ তৈরি করে তারা। ৬০ মিনিটের মাথায় তৃতীয় গোল করে ইতিহাস লেখার পথে হাটছিল জুভেন্টাস। কিন্তু শেষ পর্যন্ত আর হলো না।

এরআগের দিন অবশ্য জুভেন্টাসকে রিয়ালের বিপক্ষে কিভাবে খেলতে হবে তার একটি বার্তা দিয়েছে। সঙ্গে দিয়েছে সাহস। জুভরা সেই সাহস নিয়েই শুরু করেছিল। শেষ চারে জেতে হলে রিয়ালের মাঠে তাদের করতো হতো চার গোল। কিন্তু সংখ্যার দিকে না তাকিয়ে শুরু থেকেই আক্রমণ শুরু করে জুভরা।

কিন্তু নির্ধারিত সময়ে জুভরা ৩ গোল দিলেও দুই লেগ মিলিয়ে ৩-৩ এ সমতায় ম্যাচ। জুভরা অপেক্ষা করছে অতিরিক্ত সময়ে ম্যাচ গড়ানোর। কিন্তু যোগ করা সময়ে পাল্টে গেল হিসেব। গোল করে সেমি ফাইনাল নিশ্চিত করে রিয়াল এবং রোনালদো উঠে গেলেন রেকর্ড বইয়ে।-সমকাল।