রেফারিকে পশু বললেন বুফন

যে পেনাল্টি থেকে ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোর গোলে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের কোয়ার্টারফাইনাল থেকে বাদ পড়েছে জুভেন্টাস। আর সেই পেনাল্টি দেয়া রেফারির কোনোভাবেই ঠিক হয়নি বলে দাবি করেছেন জুভেন্টাসের অধিনায়ক জিয়ানলুইজি বুফন। এমনকি রেফারির ওপর ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন ইতালিয়ান এই গোলরক্ষক।

রিয়ালের মাঠে জুভেন্টাসের তিনটি অ্যাওয়ে গোল দেয়ার পর কে ভেবেছিল এই জুভেন্টাসকে কাঁদিয়ে চ্যাম্পিয়নস লিগের সেমিতে পৌঁছে যাবে রিয়াল মাদ্রিদ? কিন্তু শেষ মুহূর্তের নাটকীয় ঘটনায় জুভদের কাছ থেকে সেমিফাইনালের টিকিট হাতিয়ে নিয়েছে জিনেদিন জিদানের দল।

অতর্কিত পেনাল্টির বাঁশি, বুফনের লাল কার্ড-সব মিলিয়ে রেফারির এমন কান্ডকে জিয়ানলুইজি বুফন ‘পশু’র আচরণের সঙ্গে তুলনা করেছেন।বুধবার রাতে চ্যাম্পিয়নস লিগের দ্বিতীয় লেগের ম্যাচের পুরোটাই ছিল জুভেন্টাসের দখলে। তিন গোলের মাধ্যমে সেমিফাইনালের স্বপ্নও উঁকি দিচ্ছিল বুফনদের মাঝে।

ম্যাচের ৯৩ মিনিটেই সব ওলট-পালট।ফাউলের শাস্তি হিসেবে রেফারির পেনাল্টির বাঁশি ক্ষেপিয়ে তোলে ইতালির গোলরক্ষক বুফনকে। বুফনসহ অন্য খেলোয়াড়রা রেফারি মাইকেল অলিভারের সঙ্গে বাগবিতন্ডায় জড়িয়ে পড়েন। যার ফলশ্র“তিতে লাল কার্ড দেখে মাঠ ছাড়তে হয় বুফনকে।

বুফনের অনুপস্থিতিতে নতুন গোলরক্ষক ম্যাচের এমন টার্নিং মুহূর্তে চাপ সামলাতে পারেননি। ফলে পর্তুগিজ তারকা ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো পেনাল্টি থেকে গোল আদায় করে দলকে সেমিতে নিয়ে যান।রেফারির এমন একচোখা আচরণকে কিংবদন্তি খেলোয়াড় বুফন পশুর আচরণের সাথে তুলনা করেছেন।

ক্ষুব্ধ এই গোলকিপার বলেন, ‘ম্যাচের ৯৩ মিনিটের মতো গুরুত্বপূর্ণ সময়ে কোনো দলকে পেনাল্টি উপহার দেয়া মানে আপনি আর মানুষ নন বরং পশু।’রেফারির মান নিয়েও প্রশ্ন তুললেন ৪০ বছর বয়সী ব্ফুন।
এ বিষয়ে তিনি বলেন,‘ নিঃসন্দেহে আপনার বুকে হৃদয় নেই, আবর্জনা আছে।

আপনার যদি এভাবে এমন একটি স্টেডিয়ামে মাঠের ওপর হাঁটার ব্যক্তিত্ব না থাকে তাহলে গ্যালারিতে গিয়ে আপনার বউ-বাচ্চার সঙ্গে বসে থাকতে পারেন। আপনি একটি দলের স্বপ্ন ধ্বংস করে দিতে পারেন না।’
লিগ থেকে বাদ পড়লেও বুফন তার দলের প্রশংসা করতে ভোলেননি।

এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘আমি স্বাভাবিক আছি। জীবন থেমে থাকবে না। আমি আমার টিম নিয়ে দারুণ খুশি। আমরা ম্যাচে অবিশ্বাস্য কিছুই করেছিলাম। কিন্তু ম্যাচ শেষ হলো এমন লজ্জাজনক ঘটনার মধ্যে দিয়ে।’