অবশেষে সেই অবহেলিত সাকিবের জন্যই কাঁদতে হচ্ছে শাহরুখের কেকেআরকে

কলকাতা বার বার হেরে যাচ্ছে এটার কারণ কি? গত ম্যাচের কথাই ধরা যাক ২০২ ল্করে কলকাতা । কলকাতা ভেবেই নিয়েছিল তারা জিতে যাবে কিন্তু তা আর হতে দিল না চেন্নাই সুপার কিংসের ব্যাটস ম্যানরা। ভাবা যায় ২০৩ দুই রানের টার্গেট তারা করে জেতা চাট্টিখানিক কথা নয়। সেই অসম্ভবকে সম্ভব করে দেখিয়েছেন এই ওয়াটসন এবং আম্বাতি রায়ডুরা।

যদিও ২০৩ রানের জয়ের পথটা তৈরি করে দিয়েছিলেন ওপেনিং জুটি ওয়াটসন এবং আম্বাতি রায়ডু। যা পরবর্তীতে স্যাম বিলিংস ২৩ বলে ৬৫ রানের এক ঝড়ো ইনিংস দলকে জয়ের বন্দরে নিয়ে যায়।

তবে এক্তহা বলা যায় টস হেরে নাইট রাইডার্স শুরুটা মোটামুটি ভাল করেছিল ১০ ওভারে ৮৯ করতে তারা হারিয়ে ফেলে ৫টি ইউকেট। পরে দীনেশ কার্তিক এবং অ্যান্দ্রে রাসেল ফের ইনিংসের পুনর্নির্মাণ করেন এবং পরে দিকে নৃশংসভাবে ব্যাট করা শুরু করেন।

তবে ম্যাচে রাসেকে থামানো যায়নী তিনি ৩৬ বলে ৮৮ রানের এক বিধ্বংসী ইনিংস খেলেন যার মধ্যে ছিল ১১টা ছয়। কেকেআর তাদের নির্ধারিত ২০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ২০২ রান করে।

তবে ১৮তম ওভারে মানে ১২ বলে তাদের দরকার ছিল ২৭ রান আর সেটি করে দেখালো চেন্নাই সুপ্র কিংস। শেষে দীনেশ কার্তিক বলেন, আপনাকে মাথা তুলে দাঁড়াতে হবে এবং সামনের দিকে এগোতে হবে।

টি২০তে আপনি ম্যাচ হারতেই পারেন। এটাকে পজিটিভিভাবে নেওয়াটাই জরুরী। পরের ম্যাচগুলোতে আমাদের এই ভুলগুলোর পুণরাবৃত্তি করা চলবে না। ১০ তম আইপইএল এ কয়েক ম্যাচ হারের দোষ চাপায় কেকেআর।