রাশিয়ায় চাই সুস্থ মেসিকে : সাম্পাওলি

সামনে বিশ্বকাপ। ফুটবলাররা কেউ চান না, এমন কিছু ঘটুক যাতে চোট পেয়ে তাদের রাশিয়া যাওয়াই আটকে যায়।যারা বিশ্বকাপে যাচ্ছেন না তারাও সর্তক। জোহানেসবার্গে বার্সেলোনা প্রীতি ম্যাচ খেললো দক্ষিণ আফ্রিকার ক্লাব মামেলোদি সানডাউনসের বিরুদ্ধে। বার্সাই জিতল ৩-১ গোলে।

গোল করলেন আন্দ্রে গোমেজ, লুইস সুয়ারেস ও ওসুমানো দেমবেলে। লিয়োনেল মেসিকে নামানো হল শেষ কুড়ি মিনিটের জন্য। আশ্চর্য মামেলোদির একজনও আর্জেন্টাইন মহাতারকাকে এক বারের জন্যও ট্যাকল পর্যন্ত করলেন না।কেনও করলেন না তা বোঝাই যাচ্ছে।

কোনও কারণে মেসি চোট পেয়ে রাশিয়া বিশ্বকাপ থেকে ছিটকে গেলে নেলসন ম্যান্ডেলার দেশটাই খলনায়ক হয়ে যেত যে।দক্ষিণ আফ্রিকার দলটির ব্রাজিলীয় কোচ পিতসো মসিমানে সরাসরি সেই কথাটাই স্বীকার করে নিলেন। বললেন, ‘আমরা জানি বার্সেলোনার এই দলটার অনেকেই রাশিয়ায় খেলবে।

তাই আমরা চাইনি এমন কিছু ঘটুক যাতে ওদের বিশ্বকাপের পার্টি নষ্ট হয়ে যায়। তাই ফুটবলারদের পই পই করে বলে দিয়েছিলাম, কাউকে এক বারের জন্যও লাথি মারবে না। আপনারাই দেখলেন, ছেলেরা অক্ষরে অক্ষরে আমার কথা মেনে খেলল। তাই গোটা ম্যাচে একজনও হলুদ কার্ড দেখেনি।’

শুধু কী মামেলেদি? এই মুহূর্তে খুবই সাবধানে পা ফেলছে বার্সেলোনাও। বিশেষ করে মেসির ব্যাপারে। তাই বার্সা কোচ আর্নেস্তো ভালভার্দে শুধুই দক্ষিণ আফ্রিকার ফুটবলপ্রেমী মানুষদের খুশি করতে মেসিকে নামালেন খেলার ৭৪ মিনিটে। অবশ্য দুই অর্ধেই ভালভার্দে প্রায় ১১ জন করে নতুন ফুটবলার নামালেন।

এ সবই কী সামনে বিশ্বকাপ বলে? ভালভার্দে কিন্তু অন্য কারণের কথা বললেন। তার বক্তব্য, ‘আমাদের দলের সবাই প্রায় অল্প-বিস্তর জ্বরে ভুগছে। তাই এত বার খেলোয়াড় বদল করতে হলো। আর একবার অন্তত নামানো উচিৎ বলে লিয়োকে বললাম একটু অন্তত খেলে দিতে। ও আপত্তি করেনি।’

প্রসঙ্গত নেলসন ম্যান্ডেলা জন্মগ্রহণ করেন ১৯১৮ সালে। এ বছর চলছে তার জন্মের শতবার্ষিকী উদযাপন। যে কারণে এই ম্যাচের আয়োজন। দক্ষিণ আফ্রিকার ফুটবলপ্রেমীদের মধ্যে মেসিকে নিয়ে উচ্ছ্বাসটাই ছিল চোখে পড়ার মতো। অনেকে তো তার জন্য কেঁদে ভাসিয়ে দিলেন।

সঙ্গে বিশ্বকাপে মেসির সাফল্য চেয়ে প্রার্থনাও করা হয়েছে।প্রাথর্না নিশ্চয়ই আরও এক জন করছেন। আর্জেন্টিনার জাতীয় কোচ সাম্পাওলি। জাতীয় শিবিরে সুস্থ মেসিকে পাওয়ার প্রার্থনা। বুয়েনস আইরেস থেকে ৩২ কিলোমিটার দূরে এজেইজা শহরে চূড়ান্ত মহড়াও শুরু হয়ে গিয়েছে আর্জেন্টিনার।

মেসি সম্ভবত রিয়াল সোসিদাদের বিরুদ্ধে লা লিগায় শেষ ম্যাচের পরেই জাতীয় শিবিরে যোগ দেবেন। সাম্পাওলি বলেছেন, ‘আমরা এখন লিয়োর জন্যই অপেক্ষা করে আছি। আমি নিশ্চিত ও এখানে এসে গেলে শিবিরের মেজাজটাই বদলে যাবে।’

এ দিকে এই ম্যাচের দিনই জানা গেল, মেসিকে নিজের দলে চেয়েছিলেন আর্সেন ওয়েঙ্গারও। দিন তিনেক আগে আর্সেনালের প্রাক্তন ম্যানেজার জানিয়েছিলেন, টাকার অভাবেই ইপিএলে ক্রিস্টিয়ানো রোনাল্ডোকে দলে নিতে না পারাটা তার বড় আফসোস।

বুধবার আবার ওয়েঙ্গার বললেন, ‘মেসির জন্যও কিন্তু আমরা এক বার দারুণ ভাবে চেষ্টা করেছিলাম। কিন্তু বার্সা ওকে ছাড়েনি। আসলে ওর মতো প্রতিভাকে কে-ই বা ছাড়তে চায়।’-তথ্যসূত্র: আনন্দবাজার।