কিভাবে মহাকাশ থেকে সিগন্যাল পাঠাচ্ছে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট (ভিডিওসহ)

নানা জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে অবশেষে মহাকাশে নিজ কক্ষপথে অবস্থান নিয়েছে দেশের প্রথম কমিউনিকেশন স্যাটেলাইট ‘বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১’। সম্প্রতি সময় সংবাদের কারিগরি বিভাগ নিজ উদ্যেগে ডাউনলিঙ্ক সরঞ্জাম ব্যবহার করে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ এর ফ্রিকোয়েন্সি ডাউনলোড করতে সক্ষম হয়েছে।
কারিগরি বিভাগের তথ্য অনুযায়ী বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট এই মুহূর্তে ১১৯.১ ডিগ্রী দক্ষিণ-পূর্ব দিকে অবস্থান করছে এবং এর এজিমাথ হচ্ছে ১২৬.২ ও এলিভেশন হচ্ছে – ৪৭.৬। অর্থাৎ বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট যে অবস্থানে থাকার কথা ছিল ঠিক সেই অবস্থানেই অবস্থান করছে।

বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট থেকে ফ্রিকোয়েন্সি ধারণের পুরো প্রক্রিয়াটিই সময় সংবাদের পক্ষ থেকে ভিডিও করে দর্শকদের উদ্দেশে তুলে ধরা হয়েছে যা এই সংবাদের ভিডিওতে দেওয়া হয়েছে। এখানে লক্ষ্য করা গেছে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট থেকে বর্তমানে ৭টি বড় আকারের প্লট-এর সিগন্যাল পাঠানো হচ্ছে যেখানে সি-ব্যান্ডে ভার্টিক্যাল এবং হরাইজেন্টাল দুই ধরনের ফ্রিকোয়েন্সিই পাওয়া যাচ্ছে।

সময় সংবাদের সম্প্রচার ও তথ্যপ্রযুক্তি প্রধান, সালাউদ্দিন সেলিম বলেন- “এখন পর্যন্ত আমরা বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট থেকে যে সিগন্যাল রিসিভ করছি তা চলমান অন্যান্য স্যাটেলাইটের ফ্রিকোয়েন্সি রেঞ্জের মধ্যেই। এবং আমরা ছোট একটি এন্টেনার মাধ্যমে সিগন্যাল রিসিভ করেছি এর পাওয়ার লেবেল বোঝার জন্য। এবং সব মিলিয়ে আমাদের কাছে এর সিগন্যাল লেবেল যথেষ্ট ভালো মনে হয়েছে।”

উল্লেখ্য যে, গত ১২ মে বাংলাদেশ সময় মধ্যরাতের পর যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডার কেপ কেনাভেরাল থেকে বাংলাদেশের প্রথম কৃত্রিম উপগ্রহ বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট -১ ফ্যলকন-৯ রকেটের মাধ্যমে উৎক্ষেপণ করা হয়।

বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের গ্রাউন্ড স্টেশন স্থাপন করা হয়েছে গাজীপুর জেলার জয়দেবপুর ও রাঙামাটির বেতবুনিয়ায়। গাজীপুর ভূ-উপগ্রহ থেকে দিন-রাত ২৪ ঘণ্টা বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইটের গতিপথ পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে।

স্যাটেলাইটটি উৎক্ষেপণের ফলে দুর্গম এলাকায় টেলিযোগাযোগ সেবা নিয়ে যাওয়া, টেলিমেডিসিন সেবা আরও বিস্তৃত করার পাশাপাশি টেলিভিশন সম্প্রচারেও ব্যাপক সুবিধা আসবে বলে বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন।

বর্তমানে বাংলাদেশের সবগুলো টিভি চ্যানেল তাদের সম্প্রচারের জন্য বিদেশী স্যাটেলাইটের উপর নির্ভরশীল। বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের পর টিভি চ্যানেলগুলোর বিদেশ নির্ভরতা যেমন কমে আসবে তেমনি সাশ্রয় হবে মহামূল্যবান বৈদেশিক মুদ্রা। আমরা আমাদের দেশের সকল টিভি চ্যানেলের চাহিদা মিটিয়ে আমাদের স্যাটেলাইট অন্যান্য দেশের টিভি চ্যানেলের জন্য ভাড়া দিয়ে বৈদেশিক মুদ্রাও আয় করতে পারবো। আমাদের স্যাটেলাইটে মোট ৪০টি ট্রান্সপোন্ডার রয়েছে। আমাদের বর্তমানে যে চাহিদা রয়েছে তা পূরণ করেও বিদেশে ব্যান্ডইউথ রপ্তানির পরিকল্পনাও রয়েছে নীতিনির্ধারকদের।

বর্তমানে ইন্টারনেট যোগাযোগের জন্য অপটিক্যাল ফাইবার খুবই কার্যকর এবং জনপ্রিয়। কিন্তু এমন কিছু জায়গা রয়েছে যেমন, বিচ্ছিন্ন দ্বীপ বা দুর্গম পাহাড়ি এলাকা যেখানে সাধারণত ফাইবার অপটিক দিয়ে ইন্টারনেট সেবা দেয়া খুব কঠিন ব্যাপার সেখানে স্যাটেলাইটের মাধ্যমে খুব সহজেই পৌঁছানো সম্ভব। এর বাইরেও যোগাযোগ স্যাটেলাইট তথ্যপ্রযুক্তি ও টেলিযোগাযোগ ব্যবস্থায় কার্যকর ভূমিকা রাখতে সক্ষম হবে যেকোনো প্রাকৃতিক দুর্যোগের সময়। দুর্যোগের সময় ভূমি কেন্দ্রিক যোগাযোগ ব্যবস্থা অকার্যকর থাকলেও স্যাটেলাইট তখন কার্যকর থাকে। শুধু তাই নয়, প্রাকৃতিক দুর্যোগের আগে পরেও স্যাটেলাইট যোগাযোগ ব্যবস্থা খুবই কার্যকর ভূমিকা রাখবে।

সকল জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে অবশেষে কোন প্রকাশ বাধা বিপত্তি ছাড়াই সফলভাবে নিউ কক্ষপথে অবস্থান নিয়েছে বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইট। সেখান থেকে প্রয়োজনীয় সিগনাল প্রদান এবং সেই যেকোন স্থান থেকে সেই সিগনাল রিসিভ করাও সম্ভব হচ্ছে। বিশেষজ্ঞদের প্রত্যাশা, এই স্যাটেলাইট দেশের তথ্য-প্রযুক্তি খাতকে নিয়ে যাবে অনেকদূর।—সময় নিউজ

সিগন্যাল পাঠাচ্ছে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট, ভিডিওতে দেখুন ধারণকৃত সিগন্যাল