কলেজের পুরো ভবনটিই যেন আর্জেন্টিনার পতাকা

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যেখানে বলেছেন, ‘অন্য দেশের পতাকা উড়ানোর জন্য এত টাকা খরচ না করে সেই টাকা গরীব মানুষের পিছনে খরচ করুন।’ সেখানে ময়মনসিংহের গফরগাঁও মহিলা ডিগ্রি কলেজে ঘটেছে তার উল্টোটা। সেখানে লক্ষাধিক টাকা খরচ করে কলেজের একাডেমিক মূল ভবনে আর্জেন্টিনার পতাকা অঙ্কন করা হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে ফেইজবুক ও এলাকাবাসীর মধ্যে চলছে রসালো আলোচনা।

আজ শনিবার সকালে গফরগাঁও মহিলা ডিগ্রি কলেজ ক্যাম্পাসে গিয়ে দেখা যায়, কলেজের তিন তলা একাডেমিক ভবনটি আর্জেন্টিনার পতাকার রঙে রাঙানো। পুরো ভবনটিকে আর্জেন্টিনার পতাকার রঙে রাঙাতে প্রায় লক্ষাধিক টাকা খরচ করতে হয়েছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক অভিভাবক ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ভর্তি-ফরম ফিলাপের সময় ১৫০০টাকার ফি ৪-৫হাজার টাকা করে আদায় করা হয়। অথচ আমাদের কষ্টার্জিত টাকা এভাবেই খরচ করা হচ্ছে! অন্য দেশের পতাকার পিছনে এত টাকা খরচ করে আমাদের কি লাভ হবে?

অপর এক অভিভাবক বলেন, এটা পাগলামি ছাড়া কিছু নয়। অনেকেই আমাদের জাতীয় দিবসগুলোতে লাকড়ি, ২-৩ ফুট আকা বাঁকা লাঠিতে জাতীয় পতাকা টানান। অথচ অন্য দেশের পতাকা উড়াতে কি প্রাণান্ত চেষ্টা।

এ বিষয়ে গফরগাঁও মহিলা ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ আব্দুল খালেকের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এটা আমরা করিনি ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ থেকে করা হয়েছে। আর্জেন্টিনার পতাকার সাথে কিছুটা মিল থাকলেও ভিন্নতাও রয়েছে। তবু যেহেতু অন্য একটি দেশের পতাকার রঙের সাথে মিলে গেছে তাই রং মিস্ত্রী দিয়ে দেখি কি করা যায়।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ডা. শামীম রহমান বলেন, বিশ্বকাপ খেলায় ব্যক্তিগতভাবে অন্য দেশকে সমর্থন করাই যায়। তার মানে এই নয় যে, কলেজের কষ্টের টাকা খরচ করে পুরো একটি ভবনকে অন্য দেশের পতাকার রঙে রাঙাতে হবে। আমি বিষয়টি খোঁজ নেবো।

সূত্র: কালের কণ্ঠ।