তথ্যপ্রযুক্তি আইনের মামলায় রাশেদ গ্রেপ্তার

কোটা আন্দোলনকারীদের প্লাটফর্ম বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের যুগ্ম-আহ্বায়ক রাশেদ খানকে শাহবাগ থানায় ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নেতার দায়ের করা তথ্যপ্রযুক্তি আইনের মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে।

ঢাকা মেট্রোপলিটর পুলিশ-ডিএমপির মিডিয়া শাখার উপ-কমিশনার মাসুদুর রহমান এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, ছাত্রলীগের আইন সম্পাদকের তথ্যপ্রযুক্তি আইনে করা মামলায় রাশেদ খানকে গ্রেপ্তার করেছে ডিবি।

কোটা আন্দোলনের নামে উস্কানি দিয়ে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি তৈরির অভিযোগ আনা হয়েছে তার বিরুদ্ধে।

ছাত্রলীগের আইন সম্পাদক আল নাহিয়ান খান জয় ঢাকাটাইমসকে বলেন, ২৭ জুন রাশেদ খান সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে লাইভে এসে দেওয়া এক বক্তব্যে দেশনেত্রী শেখ হাসিনাকে নিয়ে কটুক্তি করেছেন। এই কারণে তার বিরুদ্বে মামলা করা হয়েছে।’

দুপুরে মিরপুর ১৪ নম্বরের ভাষানটেক বাজার এলাকার মজুমদার রোডের ১৪ নম্বর বাসা থেকে তাদেরকে তুলে নিয়ে যায় ডিবি।

এর আগে দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে নিজের অ্যাকাউন্ট থেকে রাশেদ খান ফেসবুক লাইভে বলেন, তিনি মিরপুর ১৪ নম্বরের একটি বাসায় আছেন। ডিবি পুলিশ তার বাসায় গিয়েছে। তার বাসার দরজায় বাইরে থেকে নক করার আওয়াজ লাইভ ভিডিওতে শোনান রাশেদ। এর কিছুক্ষণের মধ্যেই লাইভের সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়।

এদিকে রাশেদের সঙ্গে অপর দুই যুগ্ম-আহ্বায়ক মাহফুজ খান ও সুমন কবীরকেও উঠিয়ে নেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেলেও তাদের বিষয়ে কিছু জানায়নি ডিবি পুলিশ।-ঢাকাটাইমস