৩১২ রানে অলআউট শ্রীলঙ্কা।মুস্তাফিজ ৩, সানজামুল ৪

সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে তৃতীয় এবং শেষ টেস্ট ম্যাচ দ্বিতীয় দিনে ৩১২ রানে শ্রীলঙ্কা দলকে অলআউট করেছে বাংলাদেশ দল। বাংলাদেশের হয়ে সানজামুল ইসলাম চারটি মোস্তাফিজুর রহমান তিনটি এবং নাঈম ইসলাম ২ টি উইকেট লাভ করেন।

দিনের প্রথম ওভারেই উইকেট তুলে নিয়েছিলেন কাটার মাস্টার মোস্তাফিজুর রহমান। দলীয় ৭৮ রানের মাথায় চারিথ আসালাঙ্কা আউট করেন মুস্তাফিজ। কিন্তু এরপরই ঘুরে দাঁড়ায় শ্রীলংকার দুই ব্যাটসম্যান প্রবাথ জয়সুরিয়া এবং চারিথ আসালাঙ্কা।

অবশেষে এই দুজনের ১১৮ রানের পার্টনারশিপ ভেঙেছেন সানজামুল ইসলাম। চারিথ আসালাঙ্কাকে ৬০ রানে এলবিডাব্লিউর শিকার বানান সানজামুল ইসলাম। তবে অন্য প্রান্ত থেকে সেঞ্চুরি তুলে নিয়েছেন জয়সুরিয়া। সেঞ্চুরি করার জয়সুরিয়াকে ১৪২ রানের ক্যাচ আউট করেন মোস্তাফিজুর রহমান।

দলীয় ২৭৪ রানের মাথায় শিহান মাদুশাঙ্কাকে আউট করেন সানজামুল ইসলাম। এর পরেই শ্রীলংকার অষ্টম উইকেট তুলে নেন নাঈম হাসান। দলীয় ৩০১ রানের মাথায় শ্রীলংকার নবম উইকেট তুলে নেন সানজামুল ইসলাম। ৩১২ রানের মাথায় শেষ উইকেট দখল করে নেন সানজামুল ইসলাম।

গতকাল প্রথম দিনে টসে জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে সব উইকেট হারিয়ে ১৬৭ রান সংগ্রহ করে বাংলাদেশ এ দল। জবাবে প্রথম দিনে ৩ উইকেট হারিয়ে ৭৮ সংগ্রহ করে শ্রীলঙ্কা দল

১৬৭ রান মাথায় নিয়ে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুতেই সাদিরা সামারাবিক্রমার উইকেট হারায় শ্রীলঙ্কা। উইকেট তুলে নেন সৌম্য সরকার। দলীয় ৩২ রানের মাথায় লাহিরু থিরিমান্নের উইকেট তুলে নেন নাঈম হাসান। দলীয় ৪৭ রানের মাথায় নিজের প্রথম উইকেটের দেখা পান কাটার মাস্টার মোস্তাফিজুর রহমান। আশান প্রিয়াঞ্জনের উইকেট তুলে নেন মোস্তাফিজ।

এর আগে টসে জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে উদ্বোধনী জুটিতে ১৪ রান যোগ করেন সাদমান ইসলাম এবং সৌম্য সরকার। সাদমান ইসলাম ৯ রানে আউট হলে দলীয় ৩৭ রানের মাথায় ১৪ রান করে আউট হন সৌম্য সরকার এবং মিজানুর রহমান। চতুর্থ উইকেট জুটিতে সাইফ হাসান কে সাথে নিয়ে কিছুটা প্রতিরোধ গড়ে তোলেন জাকির হাসান। দলিয় ৭২ রানের মাথায় সাইফ ৭ রান করে আউট হন।

এরপর অধিনায়ক মোহাম্মদ মিঠুন ৩ এবং আফিফ হাসান ১২ রানে আউট হলে ৭ উইকেট হারিয়ে বিপদে পড়ে বাংলাদেশ দল। অবশেষে স্পিনার সানজামুল ইসলাম এবং নাঈম হাসানের পেটে কিছুটা প্রতিরোধ গড়ে তুলেছে বাংলাদেশ এ দল। তবে টি-ব্রেক থেকে ফিরে এসেই ২২ রানে প্যাভিলিয়নে ফিরে যান নাঈম হাসান এবং শূন্য রানে আউট হন মোস্তাফিজুর রহমান। সানজামুল ৪১ রানে অাউট হলে ১৬৭ রানে অলঅাউট হয় বাংলাদেশ এ দল।

বাংলাদেশ ‘এ’ একাদশ : সাদমান ইসলাম, সৌম্য সরকার, মিজানুর রহমান, আফিফ হোসেন, নাঈম হাসান, সাইফ হাসান, জাকির হোসেন, খালেদ আহমেদ, মোহাম্মদ মিঠুন, সানজামুল ইসলাম, মুস্তাফিজুর রহমান,

শ্রীলঙ্কা ‘এ’ দল

দিমুথ করুনারত্নে (অধিনায়ক), দানুশকা গুনাথিলাকা, সাদিরা সামারাবিক্রমা, লাহিরু থিরিমান্নে, আশান প্রিয়াঞ্জন, চারিথ আসালাঙ্কা, দাসুন শানাকা, শাম্মু আশান, মনোজ শরথচন্দ্র, প্রবাথ জয়সুরিয়া, লাকশান সান্দাকান, নিশান পেইরিস, শিহান মাদুশাঙ্কা, নিসালা থারাকা ও দিলেশ গুনারত্নে।