লজ্জার হারের কষ্ট ভুলতে স্ত্রীর সাথে সময় কাটাচ্ছেন রোহো

রাশিয়া বিশ্বকাপে প্রত্যাশা অনুযায়ী সাফল্য পায়নি ফুটবল বিশ্বের অন্যতম জনপ্রিয় দল আর্জেন্টিনা। দ্বিতীয় রাউন্ডে চরম উত্তেজনাপূর্ণ ম্যাচে ফ্রান্সের বিপক্ষে ৪-৩ গোলের ব্যবধানে লজ্জার হার হেরে বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নিতে হয় মেসিদের।অধরা তৃতীয় শিরোপা জিততে না পারায় হয়তো মন ভালো নেই আর্জেন্টাইন ফুটবলারদের।

তাই বিশ্বকাপের দুঃখ ঘোচাতে স্ত্রীকে সঙ্গে নিয়ে মেক্সিকোতে সময় কাটাচ্ছেন আর্জেন্টাইন ডিফেন্ডার মার্কোস রোহো।ফিফা বিশ্বকাপের ২১তম আসরে গ্রুপপর্বে নিজেদের প্রথম ম্যাচে নবাগত আইসল্যান্ডের বিপক্ষে ১-১ গোলে ড্র করার পর দ্বিতীয় রাউন্ড নিয়ে সংশয় দেখা দেয় দুবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নদের।

এর ষোলো কলা পূর্ণ হয় দ্বিতীয় ম্যাচে। এ ম্যাচে লুকা মড্রিচের ক্রোয়েশিয়ার কাছে ৩-০ গোলে হারে গতবারের রানারআপরা। দ্বিতীয় রাউন্ডে ওঠার ক্ষেত্রে কঠিন সমীকরণের মধ্যে পড়ে জর্জ সাম্পাওলির শিষ্যরা। শেষ ম্যাচে নাইজেরিয়ার বিপক্ষে মাঠে নামে আর্জেন্টিনা।

এদিন জয়সূচক দ্বিতীয় গোলটি করে আর্জেন্টিনাকে সেরা ষোলোতে নিয়ে যান আর্জেন্টাইন ম্যানইউ ডিফেন্ডার মার্কোস রোহো। তবে এরপর আর সুবিধা করতে পারেনি ছন্দহীন আর্জেন্টিনা। দ্বিতীয় রাউন্ডের খেলায় ফ্রান্সের বিপক্ষে ৪-৩ গোলের ব্যবধানে হারলে রাশিয়া মিশন শেষ হয় মেসি বাহিনীর।

দ্বিতীয় রাউন্ড থেকেই ঘরে ফিরতে হয়েছে দক্ষিণ আমেরিকান এ দলটিকে। রাশিয়া বিশ্বকাপ এখনো শেষ হয়নি। তাই কষ্টও কমেনি আর্জেন্টাইনদের।তবে দুঃখ ঘোচাতে স্ত্রী-সন্তান নিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছেন তারা। আর্জেন্টিনাকে দ্বিতীয় রাউন্ডে নিয়ে যাওয়া ডিফেন্ডার রোহোও এর ব্যতিক্রম হননি।

স্ত্রী ইউজিনা লুসার্ডোকে নিয়ে বর্তমানে অবস্থান করছেন মেক্সিকোতে। ইংলিশ ক্লাবে যোগদানের আগে নিজেকে সামলে নেয়ার জন্যই ঘুরতে গিয়েছেন বলে জানা যায়।

গতকাল সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ইনস্টাগ্রামে দুজনের একটি ছবি আপলোড করেন ২৮ বছর বয়সী এ ফুটবল তারকা। ছবিতে দেখা যায় দুজনে মেক্সিকোর একটি সুইমিং পুলের পাশে দাঁড়িয়ে রয়েছেন। তবে তাদের একমাত্র কন্যাকে মেক্সিকোতে নিয়ে যাননি বলে জানা যায়।

চলতি মাসের ১৯ তারিখ ক্লাব আমেরিকার বিপক্ষে একটি প্রীতি ম্যাচে মাঠে নামবেন রোহো। পর্তুগিজ অভিনেত্রী লুসার্ডোর সঙ্গে ২০১৪ সালে এক নাইট ক্লাবে প্রথম পরিচয় হয়। এরপর দুজন দুজনের প্রেমে পড়ে যান। উভয়ের সম্মতিতে বিয়ের কাজটিও সেরে ফেলেন। রোহো-লুসার্ডো দম্পতির একটি কন্যা সন্তানও রয়েছে।