আগামীকাল ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার রায়; রাজপথে সরব থাকবে আওয়ামী লীগ

২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার রায় ঘোষণাকে কেন্দ্র করে কেউ যাতে নাশকতা ও নৈরাজ্য করতে না পারে সেজন্য বুধবার রাজপথে সরব থাকবে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা।

কেন্দ্রীয় নেতারা সকাল থেকে বঙ্গবন্ধু এভিনিউ দলটির কেন্দ্রীয় কার্যালয় ও আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনার ধানমন্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে অবস্থান নেবেন। মহানগর (দক্ষিণ) নেতারা কেন্দ্রীয় কার্যালয় এবং মহানগর (উত্তর) নেতারা শেখ হাসিনার ধানমন্ডি কার্যালয়ে অবস্থান করবেন বলে জানা গেছে।

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার রায়কে ঘিরে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী কঠোর অবস্থানে রয়েছে। রায় নিয়ে বিএনপি সহিংসতা, নাশকতার চেষ্টা করলে ছাড় দেওয়া হবে না। আমরা জানি এই মামলার রায় নিয়ে বিএনপি বড় ধরনের নাশকতা ও সহিংসতার পরিকল্পনা নিচ্ছে।

ওবায়দুল কাদের হাঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেন, তারা ভুলে গেছে এটা ২০১৪ সাল নয়, এখন ২০১৮ সাল। যে কোন অপচেষ্টা হলে জনগণ প্রতিরোধ করবে, আমাদের লাগবে না। সহিংসতার উদ্বুদ্ধ পরিস্থিতিতে যা করার দরকার হয় আইন প্রয়োগকারী সংস্থা করবে।

২০০৪ সালের ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার জন্য বিএনপিকে দায়ী করে ওবায়দুল কাদের বলেন, সবাই জানে এর মাস্টারমাইন্ড হচ্ছে হাওয়া ভবন, তারেক জিয়া। এখন সত্যকে আঁড়াল করে লাভ নেই। তারপরও আমরা এই ব্যাপারে রায়ের আগে কোন কমেন্ট করতে চাই না। কিন্তু ন্যায় বিচার যেন আমরা পাই। আমরা ন্যায় বিচার প্রত্যাশা করি আদালতে।

মহানগর (উত্তর) আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাদেক খান এই প্রতিবেদককে বলেন, রায় ঘোষণাকে কেন্দ্র করে কেউ যেন নাশকতা ও নৈরাজ্য সৃষ্টি করতে না পারে সেজন্য রাজধানীর প্রতিটি মোড়ে মোড়ে আমাদের নেতাকর্মীরা সর্তক অবস্থানে থাকবে। কার্যনির্বাহী কমিটির নেতারা ধানমন্ডি শেখ হাসিনার কার্যালয়ে অবস্থান নেবেন।

জানা গেছে, যুবলীগ, মহানগর যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ , মহিলা লীগ, যুব মহিলা লীগ, শ্রমিক লীগ ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরাও রাজপথে অবস্থান নেবে।-আমাদের সময়।