শিশুর ‘ড্রাকুলা’ দাঁত নিয়ে হইচই কাণ্ড, অবাক চিকিৎসকেরাও

দাঁত নিয়ে হইচই কাণ্ড- একদিন সকালে নিজের সন্তানের কান্না শুনে দৌড়ে যান মা। কান্না থামাতে না পেরে বুকের দুধ খাওয়ানোর চেষ্টা করেন তিনি। তখনই মা তারা ও’বার্নি আবিষ্কার করেন এক অবাক কাণ্ড।

রাতারাতি ১১ সপ্তাহের শিশুর মুখে ‘ড্রাকুলা’ দাঁত দেখে অবাক হওয়ারই কথা। এই সময়ে শিশুর দাঁত উঠবে তা স্বাভাবিক। কিন্তু কোথাও কিছু নেই, এক রাতের মধ্যে এমন ত্রিকোণা আকারের দাঁত দেখে তারা অবাকই হয়েছিলেন।

আন্তর্জাতিক খবরের ওয়েবসাইট ‘শেয়ারেবলি’-র প্রতিবেদন অনুযায়ী, সেদিনই ছেলেকে নিয়ে তারা ছোটেন হাসপাতালে। কিন্তু তারার অভিযোগ, চিকিৎসকেরা তাঁর ছেলের দাঁতের দেখভাল করার বদলে নিজেদের মধ্যে আলোচনাতেই মত্ত ছিলেন। এরকম দাঁত কীভাবে গজালো তা নিয়েই বিতর্ক চলছিল চিকিৎসকদের মধ্যে।

তাঁদের চিকিৎসায় বিরক্ত হয়েই তারা বাড়ির কাছে টেম্পল স্ট্রিট হসপিটালের দ্বারস্থ হন। সেখানে দাঁতের ডাক্তারেরা তারার ছেলের এই দাঁতটি তুলে দেয়। তবে তা করতে বেগ পেতে হয় ডাক্তারদের এবং তারাকেও। কোনও রকমে হাত-পা ধরে রেখে দাঁতটি তুলে ফেলা হয়। ঠোঁট বা জিভ কেটে যাওয়ার হাত থেকে বাঁচে শিশুটি।

হ্যালোইন উৎসবের সময়ে শিশুর এই ‘ড্রাকুলা’ দাঁত নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় আগ্রহও চূড়ান্ত। সেই দাঁতটি অবশ্য তারা তুলে রেখেছেন ছেলে বড় হলে দেখাবেন বলে। যাই হোক না কেন দাঁতটি তো ওই শিশুর প্রথম দাঁত।