আজানকে অবশ্যই সম্মান দিতে হবে : সালমান খান

আজান নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করার জেরে এবার কঠোর শাস্তি-হুশিয়ারীর মুখোমুখি হলেন ভারতীয় সঙ্গীত তারকা সোনু নিগম।

সোনুর মাথা মোড়ালে নগত ২০ লাখ রুপি পুরস্কারের ঘোষণা দিয়েছে ভারতীয় ওয়েস্ট বেঙ্গল মাইনরিটি ইউনাইটেড কাউন্সিল।

ওয়েস্ট বেঙ্গল মাইনরিটি ইউনাইটেড কাউন্সিলের সহ-সভাপতি সৈয়দ শা আতেফ আলি আল কাদেরি এই ঘোষণা দিয়েছেন।

মঙ্গলবার এক সংবাদ সম্মেলনে ঘোষণা দিয়ে আল কাদেরি বলেন, ‘কেউ সোনু নিগমের মাথা মুড়িয়ে তার গলায় পুরনো ছেঁড়া জুতার মালা পরিয়ে দিয়ে ঘোরাতে পারলে ব্যক্তিগতভাবে তাকে বিশ লাখ রুপি দেয়া হবে।’

উল্লেখ্য, আজান নিয়ে বিতর্কিত টুইটের জেরে সোমবার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দিনভর সমালোচনা করা হয় গায়ক সোনু নিগমকে নিয়ে। তবে এরপরও তিনি সমানে টুইট করে গিয়েছেন।

মঙ্গলবার দুপুরে তিনি টুইটে লেখেন, ‘…আপনার স্ট্যান্ড দেখে বোঝা যায় আপনার আইকিউ কোন লেভেলের। আমি বলেছিলাম মসজিদ এবং মন্দিরে লাউডস্পিকার বাজানো উচিত নয়।’

মুম্বাইতে সোনু যেখানে থাকেন তার ঠিক সামনেই একটি মসজিদ রয়েছে। প্রতি দিন ভোরে আজানের শব্দে তাঁর ঘুম ভাঙে, এমনটাই তার দাবি।

তার দাবি ছিল, ‘তিনি মুসলিম নন। অথচ প্রতি দিন সকালে আজানের আওয়াজে তার ঘুম ভাঙে। এর পরেই তার প্রশ্ন, ‘জোর করে এ ভাবে ধর্মের সশব্দ ঘোষণা এ দেশে কবে বন্ধ হবে?’

মিনিট পাঁচেক পরের এক টুইটে লিখেন, ‘মুহাম্মদ যখন ইসলাম সৃষ্টি করেন, তখন তো বিদ্যুৎ ছিল না। তা হলে এখন এই চিত্কার-চ্যাঁচামেচি কেন সহ্য করতে হবে?’

সোনু লিখেন, ‘মন্দির বা গুরুদ্বারেও ভোরবেলা আলো জ্বালিয়ে অন্য ধর্মের মানুষের ঘুম ভাঙিয়ে দেওয়াতেও আমি বিশ্বাস করি না।’

টুইটারে সোনুর এইসব মন্তব্যের পরেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিতর্কের ঝড় ওঠে।

‘কাকভোরে জোর করে আজান শোনানো গুন্ডাগিরির নামান্তর’ দুই দিন আগে ট্যুইটারে একথা বলে ভারতজুড়ে বিতর্ক ছড়িয়েছেন সোনু নিগম।

বিতর্ক থামাতে পরে, ‘মন্দির ও গুরুদ্বারের লাউড স্পিকারও পছন্দ নয়‍’ বললেও থামছে কই?

ওদিকে আজান নিয়ে সোনুর ট্যুইটের পর আড়াআড়ি ভেঙে গেছে বলিউড। একাধিক জনপ্রিয় অভিনেতা, গায়ক ‌যেমন সোনুর পাশে দাঁড়িয়েছেন, তেমনই বিরোধিতাও করেছেন অনেকে। সোনুর সমর্থকদের দাবি, তিনি ধর্মের বিরুদ্ধে নন, শব্দদূষণের বিরুদ্ধে সরব হয়েছেন।

তবে এ বিষয়ে পূজা ভাট ও প্রিয়াঙ্কা চোপড়া ছাড়া কোনও বড় সেলিব্রিটি মুখ খোলেননি। তবে সালমানের একটি পুরনো ভিডিওর খোঁজ পাওয়া গেছে। ‌যাতে স্পষ্ট, আজানকে কতটা সম্মান করেন সল্লু ভাই।

এর আগে ২০১৪ সালের বিগ বস ৮ প্রতি‌যোগিতার সাংবাদিক সম্মেলনের সময় হঠাৎ পাশের মসজিদের লাউড স্পিকারে আজান বাজতে শুরু করে।

শুনেই প্রার্থনার প্রতি সম্মান জানিয়ে প্রেস কনফারেন্স সাময়িকভাবে বন্ধ রাখতে বলেন তিনি। আজান চালাকালীন চুপচাপ দাঁড়িয়ে পড়েন সালমান। নিজের কথা বলা বন্ধ করে দিলেন বলিউডের এই সুপার স্টার।

ওই অনুষ্ঠানের সঞ্চালককেও তিনি কথা না বলার আহ্বান জানান। যতক্ষণ আজান ছিল ততক্ষণ তারা আজানের মধুর ধ্বনি শুনছিলেন। আজান শেষ হলে আবার তার মত কথা বলতে শুরু করে। সালমান খান বলেন, আজানকে অবশ্যই সম্মান দিতে হবে।

আজানের কালাম মোট পনেরটি। আজান শোনার সাথে সাথে আজানের উত্তর দিতে হয়। সালমান খানও তাই নিশ্চুপ দাঁড়িয়ে আজানের উত্তর দিচ্ছিলেন। এতে তার অগণিত ভক্তদের সম্মান এবং শ্রদ্ধা কুড়িয়েছেন তিনি।