মিরাজের জোড়া আঘাত

দ্বিতীয় ম্যাচে এসে ক্যারিয়ারের প্রথম টেস্ট উইকেট পেলেন আরিফুল হক। পিটার মুরকে ফিরিয়ে এই পেস বোলিং অলরাউন্ডার ভাঙলেন জিম্বাবুয়ের ১৩৯ রানের জুটি।অফ স্টাম্পের বাইরের বল আচমকা কাট করে ভেতরে ঢুকে চমকে দেয় মুরকে। ডানহাতি ব্যাটসম্যান দ্রুত ব্যাট নামিয়েছিলেন কিন্তু ব্যাটে খেলতে পারেননি। আম্পায়ার এলবিডিব্লিউর আবেদনে সাড়া দিলে রিভিউ নেন তিনি। বল ট্র্যাকিংয়ে দেখা যায় লেগ-মিডল স্টাম্প লাগতো বল। মুরের সঙ্গে জিম্বাবুয়ে হারায় একটি রিভিউ।১১৪ বলে ১২ চার ও ১ ছক্কায় ৮৩ রান করে করেন মুর। ২৭০ রানে ষষ্ঠ উইকেট হারায় জিম্বাবুয়ে।

৯৯ তম ওভারের ১ম বলে সেঞ্চুরিকরা বেন্ডন টেইলরকে ও ৩য় বলে মাবুতাকেও  ফেরান মেহেদি হাসান মিরাজ।এখন পর্যন্ত জিম্বাবুয়ের সংগ্রহ ২৯৫ /৮ ।

এর আগে জিম্বাবুয়ে দলের ৪০ রানে ৪৬ বলে ৮ রান করা ডোনাল্ড ট্রিপানোকে মেহেদি হাসান মিরাজে ক্যাচে ফেরান তাইজুল। এর আগে প্রথম দিন সফরকারীদের ওপেনার হ্যামিল্টন মাসাকাদজাকেও তাইজুলই আউট করেছিলেন।

১২৮ বলে ৬টি চার ও দুটি ছক্কায় ৫৩ করা ব্রায়ান চারিকে ফেরান মেহেদি হাসান মিরাজ। দলীয় ৯৬ রানে ৩ উইকেট হারায় জিম্বাবুয়ে।

শেন উইলিয়ামসকে ব্যক্তিগত ১১ রানে বোল্ড করে ফেরান তাইজুল ইসলাম। পরে তার ঘূর্ণিতেই শূন্য রানে বোল্ড হয়ে মাঠ ছাড়েন সিকান্দার রাজা।

এর আগে সকালে ৪০ রানে ৪৬ বলে ৮ রান করা ডোনাল্ড ট্রিপানোকে মেহেদি হাসান মিরাজের ক্যাচে ফেরান তাইজুল। এর আগে প্রথম দিন সফরকারীদের ওপেনার হ্যামিল্টন মাসাকাদজাকেও তাইজুলই আউট করেছিলেন।

১২৮ বলে ৬টি চার ও দুটি ছক্কায় ৫৩ করা ব্রায়ান চারিকে ফেরান মেহেদি হাসান মিরাজ। দলীয় ৯৬ রানে ৩ উইকেট হারায় জিম্বাবুয়ে।

এর আগে মুমিনুল হকের ১৬১ ও মুশফিকুর রহিমের রেকর্ড গড়া ডাবল সেঞ্চুরিতে (২৯১) বাংলাদেশ ৭ উইকেট হারিয়ে ৫২২ রানে প্রথম ইনিংস ঘোষণা করে।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

বাংলাদেশ ১ম ইনিংস: ৫২২/৭ ডিক্লে. (১৬০)
মুশফিক ২১৯*, মমিনুল ১৬১, মিরাজ ৬৮*।
জার্ভিস ২৮-৬-৭১-৫।