দু’টি মসজিদে হামলাকারী একজনই ছিলো : নিউজিল্যান্ড পুলিশ

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে দু’টি মসজিদে হামলার দায়ে অভিযুক্ত হওয়া প্রধান সন্দেহভাজন ব্রান্টন টারান্ট একাই হামলা চালিয়েছিলো বলে ধারণা করছে দেশটির পুলিশ। ওই ঘটনায় জড়িত সন্দেহে আরো তিনজনকে আটক করা হলেও তাদের সম্পৃক্ততা না পাওয়ার কথা জানিয়েছেন নিউজিল্যান্ডের পুলিশ কমিশনার মাইক বুশ। তবে এ নিয়ে এখনই কোনও সিদ্ধান্তে পৌঁছতে চাইছেন না বলেও তিনি জানিয়েছেন।

গত শুক্রবার (১৫ মার্চ) নিউজিল্যান্ডের ইতিহাসে সবচেয়ে নৃশংস সন্ত্রাসী হামলায় কমপক্ষে ৫০ জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরো অর্ধশতাধিক।

ব্রেন্টন টারান্ট নামে ২৮ বছর বয়সী স্বঘোষিত এক শ্বেতাঙ্গ আধিপত্যবাদী হামলার দৃশ্য সরাসরি ফেসবুকে সম্প্রচার করে। ওই ভিডিওতে তাকে নিজের বন্দুক দিয়ে নির্বিচারে গুলি ছুড়তে দেখা যায়। ঘটনার পরই তাকেসহ চারজনকে আটক করে দেশটির পুলিশ।

পরের দিন প্রধান সন্দেহভাজন হিসেবে এক ব্যক্তিকে আদালতে তোলা হয়। ক্যামেরার দিকে তাকিয়ে তাকে হাসতেও দেখা যায়। তার বিরুদ্ধে হত্যার অভিযোগ আনা হয়েছে। তবে ধরনা করা হচ্ছে, আরও বেশ কয়েকটি অভিযোগ দায়ের করা হতে পারে।

সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ কমিশনার মাইক বুশ জানিয়েছেন, বন্দুক হামলার জন্য কেবল ২৮ বছর বয়সী ওই ব্যক্তির বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হচ্ছে।

তিনি বলেন, ঘটনাস্থল থেকে আটক হওয়া দুই ব্যক্তি হামলার সঙ্গে জড়িত নয় বলে মনে করছে পুলিশ। সন্দেহভাজনদের মধ্যে এক নারীকে কোনও ধরনের অভিযোগ ছাড়াই মুক্তি দেওয়া হয়েছে আর অপর এক পুরুষের বিরুদ্ধে আগ্নেয়াস্ত্র সংক্রান্ত অপরাধের অভিযোগ আনা হয়েছে।

এছাড়া এই ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে ১৮ বছর বয়সী একজনকে আটক করেছে পুলিশ। সোমবার (১৮ মার্চ) তাকে আদালতে তোলা হতে পারে। আর ব্রেন্টন টারান্টকে আগামী ৫ এপ্রিল আবারও আদালতে তোলা হবে।

সূত্র: সময় নিউজ।