সৌম্য, লিটন আর সাব্বিরের অন্তর্ভুক্তিকে আমি নেতিবাচক দৃষ্টিতে দেখতে চাই না

গতকালের বিশ্বকাপের জন্য ১৫ সদস্যের চূড়ান্ত স্কোয়াড ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ জাতীয় দলের প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু। তবে এই স্কোয়াড কিছুটা অপ্রত্যাশিত বললেন জাতীয় দলের সাবেক প্রধান নির্বাচক ফারুক আহমেদ। তার মতে দলে কিছু অনিশ্চয়তার অভাব আছে। দেশের একটি সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে বাংলাদেশ জাতীয় দলের সাবেক এই প্রধান নির্বাচক বলেন, ‘প্রথমত, জাতীয় দলের জন্য আমার শুভেচ্ছা এবং অনেক শুভ কামনা। দল নিয়ে তেমন বড় কোন মন্তব্য নেই আমার। তবে একটি বিষয় দেখে ঠিক সন্তুষ্ট হতে পারছিনা, তা হলো দল ‘আনসারটেনিটি’। কেমন যেন একটা অনিশ্চয়তা চোখে পড়ল।

আমরা কবে কখন বিশ্বকাপ খেলতে যাবো, এটা তো ছয় মাস আগে থেকেই জানা ছিল। তাহলে কেন দল চূড়ান্ত করতে আবার আয়ারল্যান্ড সফর পর্যন্ত অপেক্ষা?আমরা সবাই জানি ১২-১৩ জন মোটামুটি কনফার্ম। তার সাথে বড় জোর এক থেকে দুজনকে নিয়ে নিলেই হতো। তা না করে শুনলাম আয়ারল্যান্ডের তিন জাতি ক্রিকেট আসরের পারফরম্যান্স দেখে দল চূড়ান্ত হবে। এটা একটা বড় ধরনের অনিশ্চয়তা। এমনটা থাকা মোটেই প্রত্যাশিত নয়।

সৌম্য, লিটন আর সাব্বিরের অন্তর্ভুক্তিকে আমি নেতিবাচক দৃষ্টিতে দেখতে চাই না। বিশেষ করে সৌম্য সরকারের অতীতে ভাল খেলে দল জেতানোর রেকর্ড আছে। আমার মনে তার অতীতটাকে বিবেচনায় আনা হয়েছে।

তবে দলে একজন বাঁহাতি স্পিনার রাখতে পারলে ভাল হতো। আসলে একজন লেগস্পিনার থাকলে বেশি ভাল হতো। মানে ডানহাতি ব্যাটসম্যানদের জন্য ‘অ্যাওয়ে’ বোলার দলে থাকার একটা সুবিধা আছে। তা যখন নেই, তখন বাঁহাতি স্পিনার দিয়েই কাজ চালানো যায। সাকিব তো আছেই। আমার মনে হয় দলে আর একজন বাড়তি বাঁহাতি স্পিনার থাকলে ভাল হতো। ঘুরে ফিরে একটি অনিশ্চয়তা আমাকে বেশ পোড়াচ্ছে।