বিশ্বকাপ থেকে কোন দল কত অর্থ পেল

এবারের বিশ্বকাপে অর্থের ঝনঝনানি ছিল বেশি। ২০১৯ আসরে সবার জন্য প্রাইজমানি রেখেছিল আইসিসি। লিগপর্বে একটি ম্যাচও না জেতা আফগানিস্তানও মোটা অঙ্কের অর্থ পেয়েছে। বিশ্বকাপজয়ী ইংল্যান্ড পেয়েছে ৪০ লাখ ডলার। ২০১৫ চ্যাম্পিয়নদের চেয়ে যা অনেক বেশি। রানার্সআপ নিউজিল্যান্ড পেয়েছে ২০ লাখ ডলার। গেলবারের তুলনায় যা ২৫ হাজার ডলার বেশি। সেমিফাইনাল থেকে ছিটকে পড়া দুই দল- ভারত ও অস্ট্রেলিয়া পেয়েছে ৮ লাখ ডলার করে।

আগের বিশ্বকাপের চেয়ে যা প্রায় ২ লাখ ডলার বেশি। তবে দ্বাদশ টুর্নামেন্টে লিগপর্বে ম্যাচজয়ীদের জন্য তুলনামূলক কম অর্থ বরাদ্দ রাখে বিশ্ব ক্রিকেটের অভিভাবক সংস্থা। গ্রুপপর্বে প্রতি ম্যাচ জিতে ৪০ হাজার ডলার করে পেয়েছে দলগুলো। গেল আসরের অপেক্ষায় যা পাঁচ হাজার ডলার কম। লিগপর্ব থেকে ছিটকে পড়া ছয় দলও পেয়েছে অর্থকড়ি। প্রতিটি দল পেয়েছে ১ লাখ ডলার করে।

আইসিসির সেরা একাদশে সাকিব: আইসিসি’র ঘোষিত সেরা একাদশে জায়গা করে নিয়েছেন সাকিব আল হাসান। ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ন্তা সংস্থা সাকিবকে রেখে এবারের বিশ্বকাপ আসর শেষে সেরা একাদশ ঘোষণা করলেও, তাকে টুর্নামেন্টের সেরা খেলোয়াড় না দেয়ায় সামাজিক যোগাযোমাধ্যমে ঝড় বইছে। বিশ্বকাপের ১২তম আসর শেষে এখন গোটা ইংল্যান্ড জুড়ে চলছে স্বাগতিকদের বন্দনা।

সেই সাথে টুর্নামেন্ট শেষ হবার ১ দিন পরই আইসিসি ঘোষণা করলো এবারের আসরের সেরা একাদশ। যেখানে একমাত্র বাংলাদেশি হিসেবে জায়গা করে নিয়েছে আসরের সেরা খেলোয়াড় হবার দৌড়ে থাকা সাকিব আল হাসান। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এরই মধ্যে শুরু হয়ে গেছে ঝড়। যেখানে শুধু গ্রুপ পর্বে খেলেই ৬০৬ রান আর ১১ উইকেট নিয়ে সেরা খেলোয়াড় হবার দৌড়ে আর সবাইকেই বেশ পেছনে ঠেলে দিয়েছিলেন বিশ্বসেরা এই অলরাউন্ডার।

কিন্তু অনেকের মতেই শিরোপা না জিততে পারা নিউজিল্যান্ড অধিনায়ককে স্বান্তনা হিসেবেই এই পুরষ্কার দেয়া হয়। এমনকি যেকোন বিশ্ব আসরে সবচেয়ে কম ম্যাচ খেলে ছয়শতাধিক রান আর ১০ উইকেটের বেশি নেয়া এখন পর্যন্ত একমাত্র ক্রিকেটারও সাকিব। তাই বিশ্বকাপের সেরা খেলোয়াড়ের ট্রফি তার হাতে না ওঠাও সমালোচনার ঝড় চলছে চারিদিকে। একাদশে সর্বোচ্চ ৪ ক্রিকেটার জায়গা পেয়েছে চ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ড দলের। জেসন রয়, রো রুট, বেন স্টোকসের সাথে রয়েছে জোফর আর্চারও।

আর রানার্স আপ নিউজিল্যান্ড দল থেকে জায়গা হয়েছে কেইন উইলিয়ামসন আর পেইসার লকি ফার্গুসনের। দলের অধিনায়কত্বের ভারও পরেছে উইলিয়ামসনের কাঁধে। দুই জন করে রয়েছে সেমিফাইনাল থেকে বাদ পড়া ভারত আর অস্ট্রেলিয়া থেকেও। ভারতের রোহিত শর্মার সাথে রয়েছেন জাসপ্রিত বুমরাহ আর অজিদের থেকে নেয়া হয়েছে উইকেট রক্ষন অ্যালেক্স ক্যারি ও আসরের সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি মিচেল স্টার্ককে।