মুসলিম বিশ্বের প্রশংসায় ভাসছেন মঈন আলী-আদিল রশিদ

বিশ্বকাপের শিরোপা হাতে ইংল্যান্ড দলের শ্যাম্পেইন পার্টি থেকে দৌড়ে পালিয়েছিলেন মঈন আলী ও আদিল রশিদ। ওই সময়কার একটি ছোট ভিডিও মুহূর্তেই ছড়িয়ে পড়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে। যা দেখে মঈন ও রশিদকে বাহবা দিয়েছিল মুসলিম বিশ্ব।এবার ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে’র সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে এই দুই ক্রিকেটারের কাণ্ডেও প্রশংসা ঝরলো মুসলিম বিশ্বের।

বিশ্বকাপজয়ী দলকে শুভেচ্ছা জানিয়ে একটি জাঁকজমকপূর্ণ পার্টির আয়োজন করেছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে। প্রধানমন্ত্রী ভবনে আয়োজিত সেই পার্টিতে ইংল্যান্ডের বিশ্বকাপজয়ী দলের সব সদস্যই উপস্থিত ছিলেন। ইংলিশ সংস্কৃতি অনুসারে ক্রিকেটারদের সঙ্গে থেরেসা মেও মদ পান করে শিরোপার উৎসব করেছেন। তবে পার্টিতে অংশ নিলেও ইসলামে নিষিদ্ধ হওয়ায় অ্যালকোহল তথা মদপান থেকে বিরত থাকেন মঈন ও রশিদ।

ইংল্যান্ডের এই দুই মুসলিম ক্রিকেটারের এমন কর্মকাণ্ড মুসলমানসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের মাদকবিরোধী সংগঠন ও স্বাস্থ্য সচেনত মানুষ ব্যাপক প্রশংসা করেছেন। সামাজিক যোগাযোগের জনপ্রিয় মাধ্যম ফেসবুক-টুইটারে তারা উচ্ছ্বসিত প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছেন। ছবি প্রকাশ পেতেই সকলেই প্রশংসায় মাতে মঈন-রশিদের। প্রায়শই মাঠেই বিয়ার ও শ্যাম্পেইনের বোতল নিয়ে উদযাপনে মাতে ইংল্যান্ড দল। ব্যতিক্রম থাকেন কেবল এই দুই ক্রিকেটার।

বরাবরই একটু দূরে সরে গিয়ে ধর্মভীরুতা প্রদর্শন করেন এই দুই মুসলিম ক্রিকেটার। ওয়ানডে বিশ্বকাপের ১২তম আসরেও ঠিক এই কারণেই দৌড়ে পালান তারা। বিশ্বকাজীয় দলের ক্রিকেটারদের সঙ্গে সৌজন্যতা সেরে প্রধানমন্ত্রী নিজের ভেরিফায়েড পেজ টুইটারে লেখেন, এমন একটি ক্রিকেট দল আমরা পেয়েছি, আগামী কয়েক প্রজন্ম যাদের কথা শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করবে। দেশের সব মানুষের পক্ষ থেকে বিশ্বকাপজয়ী দলকে অভিনন্দন।