অপেক্ষা – নাঈমা শেখ

সকালের মিষ্টি রোদে শীতের সকালে ,

কম্বল মুড়ি দিয়ে ,

রাস্তার পাশে দাড়িয়ে ছিলাম।

 

তুমি আসবে বলেছিলে ,

প্রকৃতিতে নিঃশব্দ ছিলো,

তোমার গল্প শুনে ,

আমার হাহাকারের ধ্বনি শুনে কেদেছিলো প্রকৃতি,

সকাল গড়িয়ে দুপুর এলো।

 

রোদের খরতাপে দেহ পুড়ে গিয়েছিলো ,

তবুও আমি উত্তপ্ত বালু কণার উপর খালি পায়ে দাড়িয়ে ছিলাম।

সূদূর পানে তাকিয়ে।

 

তুমি আসবে বলে ,

বৃষ্টি এলো ,

আমাকে ভিজিয়ে দিয়ে গেলো ,

আমার চোখের জল আড়াল করে দিলো ,

সেও অনেক কেদেছিলো তোমার আমার গল্প শুনে।

 

বৃষ্টি চলেও গেলো ,

তুমি এলে না।

 

তবুও আমি একরত্তি আশা নিয়ে দাড়িয়ে ছিলাম ,

তোমায় ফিরে পাওয়ার আশায়। এ

 

খন যে বেলাশেষের দিকে ,

আশার প্রদ্বীপ যে নিভু নিভু ,

অন্ধকারে তুমি যে বড্ড বেশি ভয় পেতে ,

সেই ভয়েই যে আমি ভীত ছিলেম ,

তাই আমি দ্বীপ জ্বেলে দাঁড়িয়েছিলাম।

 

তুমি আসবে বলে , অন্ধকার ঘনিয়ে এলো ,

আরও গাঢ় হতে লাগলো ।

 

চারদিক নিস্তব্ধ ,

একপ্রহর ,

দ্বি – প্রহর কেটে গেলো ,

অন্ধকার চলে গেলো ,

নতুন দিন উদয় হলো ।

তবুও তুমি এলে না,

দিনের পর দিন কেটে যায় তোমার দেখা মিলে না,

আমার তোমায় ফিরে পাওয়ার অপেক্ষার প্রহর তাই শেষ হয় না ।

[ছবি: প্রতীকি]

—— নাঈমা শেখ