সরকারকে জাতিসংঘের চিঠি

২০১৩ সালের ডিসেম্বরে র‌্যাব কর্তৃক অপহৃত ৮ জনের ব্যাপারে যে অভিযোগ রয়েছে, তা তদন্তে বাংলাদেশ সরকারকে উদ্যোগী হওয়ার অনুরোধ জানিয়েছে জাতিসংঘের বলপূর্বক গুম বিষয়ক ওয়ার্কিং গ্রুপ।

এজন্য জেনেভায় অবস্থিত বাংলাদেশের স্থায়ী মিশনের কাছে একটি চিঠিও পাঠানো হয়। ঘটনার প্রায় দেড় বছর অতিবাহিত হওয়ার পর এ অনুরোধ জানানো হয়। ওই ৮ জনের অবস্থান আজও পর্যন্ত জানা যায়নি। গত ৩ জুলাই চিঠিটি পাঠানো হয়। জেনেভায় কর্মরত জাতিসংঘ ওয়ার্কিং গ্রুপের এক কর্মকর্তা জানান, জেনেভায় বাংলাদেশের স্থায়ী জাতিসংঘ মিশনকে সম্বোধন করে অনুরোধটি পাঠানো হয়।

সেখান থেকে ঢাকায় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে চিঠিটি পাঠানোর কথা। বুধবার ইংরেজী জাতীয় দৈনিক নিউ এইজ পত্রিকায় ডেভিড বার্গম্যান ও মুক্তাদির রশিদের লেখা ‘ইউএন কলস ফর গভর্নমেন্ট ইনভেস্টিগেশন অব ৮ ডিজাপিয়ার‌্যান্সেস’ প্রতিবেদনে এসব কথা বলা হয়েছে।

ওই ৮ জন ছিলেন অপহৃত ১৯ জনের মধ্যে। তাদের প্রায় সবাই বাংলাদেশের প্রধান বিরোধী দল বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি) বা এর অঙ্গসংগঠনসমূহের সদস্য।

২০১৩ সালের ২৮ নভেম্বর থেকে ১১ ডিসেম্বর পর্যন্ত ঢাকা ও এর আশপাশ থেকে ২ সপ্তাহের মধ্যে তাদের তুলে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। পরিবার ও নিরপেক্ষ প্রত্যক্ষদর্শীদের মতে, ৮ জনের মধ্যে ৬ জন আসাদুজ্জামান রানা, জাহিদুল ইসলাম তানভীর, মোহাম্মদ মাজহারুল ইসলাম রাসেল, আল-আমিন, আবদুল কাদের ভূঁইয়া ও শাজেদুল ইসলামকে রাজধানীর বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার নির্মাণাধীন একটি ভবনের বাইরে থেকে র‌্যাব ২০১৩ সালের ৪ ডিসেম্বর রাতে তুলে নিয়ে যায়। পরদিন অর্থাৎ, ৫ ডিসেম্বর ভোরের দিকে অপর দুই ব্যক্তি মোহাম্মদ কাওসার ও আদনান চৌধুরীকে শাহীনবাগের কাছে তাদের বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে যায় র‌্যাব। সেখানকার প্রত্যক্ষদর্শীদেরও দাবি, এ ঘটনায় র‌্যাব জড়িত।