দুইজন ছাড় পেলেও নিষিদ্ধ হচ্ছেন একজন

তিন ক্রিকেটার নাসির হোসেন, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত ও সাব্বির রহমান বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) ডিসিপ্লিনারি কমিটির সামনে হাজির হবেন আজ। তাদের বিরুদ্ধে সাম্প্রতিক যে শৃঙ্খলাবিরোধী কার্যক্রমে জড়িত থাকার অভিযোগ উঠেছে তারই প্রেক্ষিতে বিসিবিতে তলব করা হয়েছে এই তিন ক্রিকেটারকে। জানা গেছে, নাসির হোসেন ও মোসাদ্দেক হোসেনের আপাতত কোনো শাস্তির সম্ভাবনা নেই। তবে রেহাই পাচ্ছেন না সাব্বির রহমান। বড় শাস্তির খড়গ ঝুলছে সাব্বিরের উপর। এ নিয়ে বিসিবি’র ডিসিপ্লিনারি কমিটির অন্যতম সদস্য জালাল ইউনুস বলেন, ‘নাসির এখন তার অপারেশনের পর ঘরে বিশ্রামে।

আর মোসাদ্দেকের বিরুদ্ধে তার স্ত্রীর করা নারী নির্যাতনের মামলাটি আদালতে। আদালতে গড়ানো কোনো বিষয় নিয়ে কথা বলার অবকাশ নেই। আদালতই সিদ্ধান্ত দেবেন মোসাদ্দেক দোষী না নির্দোষ। আইনের চোখে দোষী সাব্যস্ত হলে মোসাদ্দেককে অবশ্যই শাস্তি দেবে বিসিবি। তবে সেটা এখন নয়। তার বিষয়ে আদালত কী সিদ্ধান্ত দেন তার উপরে নির্ভর করবে আমাদের (বোর্ডের) সিদ্ধান্ত।

আর নাসিরের ব্যাপারে কথা হলো, যেহেতু সে আপাতত খেলার অবস্থায় নেই তাই তাকে সাময়িকভাবে বহিষ্কার করাটাও অযৌক্তিক। বাকি থাকলো সাব্বির। তাকে এর আগে ঘরোয়া ক্রিকেটে নিষিদ্ধ করা হয়েছিল পাশাপাশি অর্থ দণ্ডেও দণ্ডিত হয়েছিল। কিন্তু তারপরেও আচরণে বড় কোনো পরিবর্তন আসেনি। আবারো তার বিরুদ্ধে বলগাহীন ও শৃঙ্খলাবিরোধী আচরণের অভিযোগ। তাই আমরা তাকে একটা নির্দিষ্ট সময়ের জন্য ক্রিকেটের বাইরে রাখার চিন্তাভাবনা করছি।’ এবার আর শুধু ঘরোয়া ক্রিকেটে নয় আন্তর্জাতিক ক্রিকেটেও হয়তো নির্দিষ্ট সময়ের জন্য নিষিদ্ধ হতে যাচ্ছেন সাব্বির রহমান।

এবার সাব্বিরকে ছাড়াই সাজানো হয়েছে এশিয়া কাপের দল। কতদিনের জন্য নিষিদ্ধ হবেন সাব্বির? গুঞ্জন আছে সাব্বির ছয় মাসের জন্য নিষিদ্ধ হতে পারেন। এ বিষয়ে জালাল ইউনুস বলেন, ‘সেটা ডিসিপ্লিনারি কমিটির সবাই মিলেই ঠিক করবেন। ৩ মাস, ৬ মাস কিংবা এক বছরের কথা হচ্ছে। তাই আমার একার পক্ষে বলা সম্ভব নয় তাকে কতদিনের জন্য নিষিদ্ধ করা হবে।’ ছয় মাসের নিষেধাজ্ঞা দেয়া হলে জিম্বাবুয়ে ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে হোম সিরিজের পাশাপাশি বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগেও (বিপিএল) খেলা হবে না সাব্বিরের।-মানবজমিন