যে খাবারগুলো থেকে বাচ্চাদের দূরে রাখাই ভালো

বাচ্চাদের তো কতো খাবারের অবদারই থাকে। চকলেট, আইসক্রিম, চিপস, বার্গার, পিজা, চিকেন ফ্রাই ইত্যাদি ইত্যাদি। আবদারের শেষ নেই। অভিভাবকগণও আদরের বাচ্চাটির আবদার রক্ষা করতে মাঝে মধ্যেই খেতে নিয়ে যান কোনো রেস্টুরেন্টে অথবা বাসায় ফেরার পথে সাথে করে নিয়ে আসেন চকলেট, চিপস, আইসক্রিম। কিন্তু একবার ভেবে দেখেছেন কি আদরের শিশুটির আবদার রক্ষা করতে গিয়ে তাদের ঠেলে দিচ্ছেন না তো বিপদের মুখে? তাই আজকে দেখে নিন কোন কোন খাবার থেকে নিজের প্রাণপ্রিয় শিশু সন্তানদের দূরে রাখাই মঙ্গল।

ফাস্ট ফুড জাতীয় খাবার
ফাস্ট ফুড জাতীয় খাবারের প্রতি ছোট বড় সকলেরই বেশ আকর্ষণ রয়েছে। কিন্তু বড়দের ক্ষেত্রে যতোটা ক্ষতিকর এই ফাস্ট ফুড তার চাইতে প্রায় ১০ গুম বেশি ক্ষতিকর বাচ্চাদের জন্য। প্রচুর পরিমাণে ফ্যাট, ক্যালোরি এবং সোডিয়ামে ঠাসা এই খাবারগুলো বাচ্চাদের দেহের চাহিদার চাইতে অনেক বেশি। তাই মাসে ১ বারের বেশি বাচ্চার আবদার রক্ষা না করাই ভালো।

স্মুদি
ইদানীং স্মুদির প্রচলনটা বেশ বেড়ে গিয়েছে। অনেক বাচ্চাই স্মুদি বেশ পছন্দ করে পান করে থাকে। গরমের সময় এবং বিশেষ করে অনেক ফলের তৈরি হয়ে থাকে বলে অভিভাবকগণ মনে করেন স্মুদি খাওয়া তেমন ক্ষতিকর নয়। কিন্তু আপনি জানেন কি মাত্র এক গ্লাস স্মুদিতে থাকে ৫০০ ক্যালোরি, যা বাচ্চাদের দেহের চাহিদার তুলনায় অনেক বেশি। এতে ক্ষতি হয় বাচ্চাদের স্বাভাবিক দেহক্রিয়ায়। তাই স্মুদি থেকে দূরে রাখুন বাচ্চাদের। এর চাইতে পরিমিত তাজা ফলের রস দিতে পারেন।

ইনস্ট্যান্ট নুডলস
ইনস্ট্যান্ট নুডলসের ননস্টিকি ভাব তৈরিতে ব্যবহার হয় ওয়াক্স যা আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য অনেক ক্ষতিকর। একজন পূর্ণবয়স্ক মানুষের পেট থেকে ১ প্যাকেট ইনস্ট্যান্ট নুডলসের ওয়াক্স পরিষ্কার হতে সময় নেয় ১ সপ্তাহ। তাহলে একবার ভাবুন তো এই ওয়াক্স আপনার আদরের সন্তানের ক্ষেত্রে কতোটা ক্ষতিকর হতে পারে। তাই ইনস্ট্যান্ট নুডলস থেকে বাচ্চাকে দূরে রাখুন।

চকলেট বার
চকলেট বার এবং গ্রানোলা বারগুলো পূর্ণবয়স্ক মানুষের ক্ষেত্রে যেমনটা ক্ষতিকর তেমনই ক্ষতিকর বাচ্চাদের ক্ষেত্রেও। চিনিতে ভরপুর এই বারগুলো অন্য যে কোন মিষ্টি জাতীয় খাবার থেকে বেশি ক্ষতিকর। তাই বাচ্চাদের হাতে পুরো একটি চকলেট এবং গ্রানোলা বার ধরিয়ে দেয়ার আগে চিন্তা করে দেখুন এতোতা সুগার বাচ্চাটির কতোটা ক্ষতি করতে পারে।

চীজ ও ফ্লেভারড দই
এই দুটোর মধ্যেই রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ক্যালোরি। এর পাশাপাশি ফ্লেভারড দইয়ে যোগ হয় আর্টিফিশিয়াল ফ্লেভার যা বাচ্চাদের দেহের জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকারক। তাই এইসকল খাবার থেকে বাচ্চাদের দূরে রাখাই শ্রেয়।