যে কারণে ডাকা হয়নি নাসিরকে !

শৃঙ্খলা ভঙ্গের কারণে শাস্তি পেয়েছেন সাব্বির রহমান। একই দিনে শুনানি ছিল তার আরেক সতীর্থ নাসির হোসেনের। তবে শুনানিতে আসার কথা থাকলেও শেষ পর্যন্ত আসা হয়নি নাসিরের। তাকে ডাকা হয়নি বিসিবির পক্ষ থেকেই। মূলত পায়ের চোটের কারণে শুনানিতে ডাকা হয়নি তাকে। তবে পরবর্তীতে নাসিরকে ডাকা হবে জানিয়েছে বিসিবির শৃঙ্খলা কমিটির পক্ষ থেকে।

মাঠের বাইরে নানান তর্ক-বিতর্ক রয়েছে নাসির হোসেনকে নিয়ে। তাকে ঘিরে অভিযোগ ছিল চন্ডিকা হাথুরুসিংহে কোচ থাকাকালীন। এক প্রকার দলের বাইরেই রেখেছিলেন তাকে। অবশ্য এর পেছনে কারণও রয়েছে নিশ্চয়ই। সর্বশেষ তাকে ঘিরে আলোচনা হয়েছিল নারীসম্পৃক্ত। ফেসবুকে ভাইরাল হয় দুইজনের একান্ত ফোনালাপ।

তারপরেই তাকে ঘিরে শুরু হয় নানান আলোচনা-সমলোচনা। মাঠের বাইরে বিভিন্ন কান্ডের সঙ্গে জড়িত থাকার কারণে বড় ধরণের শাস্তির মুখে পড়তে যাচ্ছিলেন বলে আশঙ্কা করে গিয়েছিল। সেটির জন্য আজ বিসিবিতে শুনানি হওয়ার কথা ছিল নাসিরের। তবে হুট করে পরিবর্তন হয় সেটি। জানা যায় বিসিবির পক্ষ থেকেই ডাকা হয়নি নাসিরকে।

ঠিক কী কারণে ডাকা হয়নি নাসিরকে সেটির ব্যাখা দিয়েছেন বিসিবির শৃঙ্খলা কমিটির সদস্য ইসমাইল হায়দার মল্লিক। মূলত পায়ের ইনজুরির কারণে শেষ পর্যন্ত ডাকা হয়নি নাসিরকে। তবে নাসিরের বিষয় নিয়ে পরবর্তীতে বসা হবে জানিয়েছেন তিনি।

‘পরে হয়তো ডাকা হতে পারে। চোটের কারণে সে ক্রিকেটের বাইরে আছে। একজন ক্রিকেটারের কী শাস্তি হতে পারে? আর্থিক কিংবা নিষেধাজ্ঞা। যেহেতু সে চোটে পড়েছে, এ কারণে আমরা ডাকিনি।’

এইদিকে চোটের কারণে নাসিরকে শাস্তির আওতায় না আনা হলেও শাস্তি পেয়েছেন তার আরেক সতীর্থ সাব্বির রহমান। বেশ কিছুদিন ধরেই তার নামে অভিযোগ জমা পড়েছে অনেক। যার কারণে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে ছয় মাসের জন্য নিষিদ্ধ করা হয়েছে তাকে। পরবর্তীতে আবার একই পথে হাটলে বড় ধরণের শাস্তির মুখে পড়তে হতে পারে সাব্বিরকে।

তবে বিসিবির পক্ষ থেকে কোন ধরণের শাস্তি দেওয়া হয়নি মোসাদ্দেককে। তার স্ত্রী শারমিন তার বিরুদ্ধে বিসিবিতে অভিযোগ করলেও বিষয়টি পারিবারিক ও আদালতে যাওয়াতে শৃঙ্খলা কমিটি থেকে সতর্ক করা হয়েছে তাকে। তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগের রায় দিবে আদালত।