মেয়েকে নিয়ে কানাডায় বসবাস করছেন তিন্নি

এক সময়ের আলোচিত মডেল ও অভিনেত্রী শ্রাবস্তী দত্ত তিন্নি। ২০০৪ সালে তিন্নি মিস বাংলাদেশ নির্বাচিত হয়েছিলেন। এরপর অসংখ্যা জনপ্রিয় টিভি নাটকে অভিনয় করেন। মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর নির্দেশনায় একটি বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে ব্যাপক আলোচিত হন তিনি। এছাড়া নূরুল আলম আতিকের ‘ডুবসাঁতার’, মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর ‘মেড ইন বাংলাদেশ’ চলচ্চিত্রে অভিনয় করেও দর্শকের মধ্যে সাড়া ফেলেন। পরে শাকিব খানের বিপরীতে ‘সে আমার মন কেড়েছে’ ছবিটি দিয়ে বেশ আলোচনায় ছিলেন এ অভিনেত্রী।

কিন্তু ব্যক্তিগত জীবনের উত্থান-পতন, বিয়ে, বিচ্ছেদ, মিডিয়া থেকে আড়াল হওয়া, মাদকাসক্তি সব মিলিয়ে তার জীবন হয়ে উঠেছিল বিশৃঙ্খল ও বিপর্যস্ত। বর্তমানে মিডিয়ায় নেই তিন্নি, দেশেও নেই। কানাডার মন্ট্রিলে রয়েছেন এই অভিনেত্রী। সম্প্রতি কানাডায় মিডিয়া জগতের বন্ধু নিরবের সঙ্গে দেখা যায় তিন্নিকে। জানা যায়, একমাত্র মেয়ে ওয়ারিশাকে নিয়ে কানাডার মন্ট্রিলে বসবাস করছেন তিনি।

অভিনয়ে দীর্ঘদিন বিরতি দিয়ে ২০১৫ সালে ‘একই বৃত্তে’ নাটক দিয়ে অভিনয়ে ফিরছিলেন আলোচিত মডেল-অভিনেত্রী । এরপর একই বছর আরও কিছু নাটকে অভিনয় করতে দেখা যায় তাকে। তারপর আবারও বিরতি। সবশেষ গেল বছরের জুলাইয়ে তিনি সর্বশেষ ‘কুয়াশার ভিতরে একটি মৃত্যু’ নামে একটি নাটকে অভিনয় করেন। পারভেজ আমিন পরিচালিত নাটকটিতে সজলের বিপরীতে অভিনয় করেন তিনি।একই বছরের ১৫ অক্টোবর কানাডার উদ্দেশ‌্যে দেশ ছাড়েন তিন্নি।

তিন্নি ২০০৬ সালের ২৮শে ডিসেম্বর অভিনেতা আদনান ফারুক হিল্লোলকে বিয়ে করেন। দাম্পত্য কলহের জের ধরেই ২০০৯ সালের শেষের দিকে তিন্নি-হিল্লোল আলাদা থাকতে শুরু করেন। তার বেশ ক’বছর পর তাদের বিচ্ছেদের খবর প্রকাশ হয়। এরপর ২০১৪ সালের ১৮ই ফেব্রুয়ারি আদনান হুদা সাদকে বিয়ে করেন তিন্নি। ২০১৫ সালের অক্টোবর মাসে প্রকাশ হয় তিন্নির দ্বিতীয় বিয়ের কথা। এ সংসারও তার সুখের হয়নি। শেষ পর্যন্ত এ বিয়েও টিকেনি।