আগামী নির্বাচন কেউ ঠেকাতে পারবে না : প্রধানমন্ত্রী

আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন কেউ ঠেকাতে পারবে না বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, অাগামী নির্বাচনে ভোট কারচুপি করতে পারবে না বলেই বিএনপি ইভিএম এর বিরোধিতা করছে।
রোববার (০২ সেপ্টেম্বর) বিকেলে গণভবনে আয়োজিত বিমসটেক সম্মেলন নিয়ে প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘বিএনপির নির্বাচনে আসার বিষয়ে সরকারের কিছু করার নেই। এটা তাদের নিজস্ব ব্যাপার। তাদের সঙ্গে নির্বাচন নিয়ে কোনো আলোচনা হবে না।’

সম্ভাব্য জাতীয় নির্বাচন ঘিরে অস্থিরতার শঙ্কা-উদ্বেগ নিয়ে আরেক প্রশ্নের জবাবে আওয়ামী লীগ সভাপতি বলেন, ‘নির্বাচন হবেই। কেউ ঠেকাতে পারবে না, কারও শক্তি নেই নির্বাচন ঠেকানোর। যারা ঠেকাতে চেয়েছিল, তাদের আগেরবার যেমন জনগণ মোকাবেলা করেছিল, এবারও মোকাবেলা করবে।’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘ইভিএম ডিজিটাল বাংলাদেশেরই একটা পার্ট। আমরা এখন টাকা পাঠাচ্ছি অনলাইনে, গাড়ি কিনছি অনলাইনে, সবজি কিনছি অনলাইনে। এটা ঠিক যে প্রযুক্তি আমাদের সবসময়ই সুবিধা করে দেয় তা কিন্তু নয়।’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘আজকে ইভিএমের বিরুদ্ধে বিএনপি সবচেয়ে বেশি সোচ্চার। ভোটের রাজনীতিতে কারচুপি করা এটা তো স্বাধীনতার পর বাংলাদেশে নিয়ে এসেছিল জিয়াউর রহমান। আজকে বিএনপি যখন ভোটের কারচুপি নিয়ে কথা বলে তখন তাদের তো জন্মলগ্নটা দেখা দরকার। কোন জন্মের মধ্যদিয়ে তারা এসেছিল? ১৫ ফেব্রুয়ারি নির্বাচনের কথা সবার মনে আছে। যাদের জন্মটাই কারচুপির মধ্যদিয়ে তারা আবার কারচুপি নিয়ে কথা বলে।’

তিনি বলেন, ‘ইভিএম নিয়ে তারা অভিযোগ করবেই, কারণ কারচুপির একটা টেকনিক তাদের জানা আছে। বহু টেকনিক তারা ইলেকশন কারচুপিতে জানে। ইভিএম চালু হলে ব্যালট পেপার একটার বদলে দুটো নিতে পারবে না। সে জন্যে তারা আপত্তি জানাচ্ছে।’-সময় নিউজ।