রাতে ঘুম নেই? তিনটি খাবার খেয়ে দেখুন!

শরীরের জন্য ঘুম খুব উপকারি। ঘুমের যদি ব্যাঘাত ঘটে তবে কার মাথা ঠিক থাকে বলুন তো? আপনার প্রতিদিনের কাজের চাপ আর নানান চিন্তা আপনাকে ঘুমাতে দেয় না। চিন্তা না মিটলে ঘুম কি আর এমনি এমনি আসবে। কিন্তু তাই বলে তো আর দিন কাটবে না, এমনটা হতে পারে না।

তাই সমস্যা সঙ্গে রেখেও চোখে ঘুম আনতে হবে। কীভাবে আনবেন সেই প্রিয় ঘুম, চলুন একবার দেখে নিই।

শরীরকে সুস্থ সতেজ রাখতে ঘুমের কোন বিকল্প নেই। সেই ঘুমে যদি টান পড়ে তাহলে সুস্থতা বেশি দিন টিকবে না। ঘুমের অভাবে আপনাকে অসুস্থতা আকড়ে ধরতে পারে। যদি দেখেন দিনের পর দিন চোখে ঘুম নেই তাহলে দিনে অন্তত দু’টো পাকা কলা খান।হ্যাঁ এই কলাতেই রয়েছে প্রচুর পরিমান পটাশিয়াম ম্যাগনেশিয়ামের মতো উপাদান।যা শরীরের মাংস-পেশীর অস্থিরতা কাটাতে সহায়তা করে।

এই অস্থিরতা কাটলেই ক্লান্তির বেশে ঘুম নেমে আসবে চোখে। কলাতে থাকা প্রাকৃতিক শর্করা রক্তের গ্লুকোজের পরিমাণকে ক্রমশ কমিয়ে দেয়। তাই সারাদিনের শিডিউলের পর ঘুমোতে যাওয়ার আগে অবশ্যই একটা কলা খান। এতে ঘুমের পরিমাণ বাড়বে।

দুধে প্রচুর পরিমাণে অ্যামিনো অ্যাসিড থাকে। তাই নিয়মিত দুধ পান করলে শরীরের সেরোটোনিন হরমোনের স্বাভাবিক ক্ষরণ হয়। আর এই সেরোটোনিন আপনার শরীরকে ঘুমের উপযোগী করে তোলে।

বাদাম খেতে ভালবাসলে তো কথাই নেই। বাদামে রয়েছে মেলাটোনিন হরমোন। যা ঘুমকে তরান্বিত করে। বাদামে প্রয়োজনীয় ফ্যাটও অ্যামিনো অ্যাসিড রয়েছে। যা শরীরের জন্য বিশেষ জরুরি। তাই ঘুমানোর আগে একমুঠো বাদাম খেলে ঘুম আসবে।

তবে ঘুমকে ডাকার আনন্দে যেমন এগুলো খাবেন। তেমনই রাতে ঘুমোতে যাওয়ার আগে মনের ভুলেও নোনতা খাবারের ধারে কাছে যাবেন না।

একইভাবে আইসক্রিমের প্রতি দারুণ অনুরাগ? তবে ঘুমোনোর আগে কিন্তু স্বাদ বদলের জন্য এই প্রিয় খাবারটিকে ভুলে থাকুন। আইসক্রিমে থাকা সুগার ও ফ্যাট মস্তিষ্কের সক্রিয়তাকে বাড়িয়ে দেয়। স্বাভাবিকভাবে ঘুম যায় হারিয়ে। সেরকমই ডার্ক চকোলেটও এড়িয়ে চলা ভাল।

ডার্ক চকোলেটে থাকা ক্যাফেইন এনার্জিকে বাড়াতে গিয়ে ঘুমকে ঘুম পাড়িয়ে দেয়। সেকারণেই ঘুমের আগে ডার্ক চকোলেট ও আইসক্রিমকে দূরেই রাখুন। সুত্র: প্রতিদিন