মাশরাফিকে নিয়ে যা বললেন কোর্টনি ওয়ালশ

১৭ বছর ধরে বাংলাদেশের পেস আক্রমণকে নেতৃত্ব দিয়ে আসছেন তিনি। গত তিন বছর ধরে নেতৃত্ব দিচ্ছেন জাতীয় দলকে। দেশের প্রতি, খেলার প্রতি তার কমিটমেন্ট নিয়ে প্রশ্ন তোলার বিন্দুমাত্র সুযোগ নেই কারও। চোটের সঙ্গে এই ১৭ বছর লড়াই করেও তার বোলিংয়ের ধার কমেনি। এই বয়সেও তাই তার ওপরেই ভরসা রাখে জাতীয় দল। সেই টাইগার ক্যাপ্টেনকে নিয়ে এবার খোলামেলা কথা বললেন পেস বোলিং কোচ কোর্টনি ওয়ালশ।

ক্যারিবীয় কিংবদন্তির মতে, আদর্শ ক্রিকেটারের জ্বলন্ত উদাহারণ ম্যাশ। আজ শনিবার শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে সংবাদমাধ্যমের কাছে ওয়ালশ বললেন, ‘ম্যাশের অভিজ্ঞতা ও ওর স্কিলসেট অন্যদের থেকে অনেক আলাদা। আরও ভালো।

বরাবরই সে দারুণ এক ফাস্ট বোলার। ইনজুরি না থাকলে এখনও হয়ত সে টেস্ট ক্রিকেট খেলত। আমি এখানে আসার পর প্রথমে ওকে এটাই বলেছিলাম, এখনও তো তুমি টেস্ট ক্রিকেট খেলতে পারো! কিন্তু ইনজুরির কারণে সব সংস্করণ খেলতে পারছে না। অনেক বছর ধরেই বাংলাদেশের জন্য যে খুবই উঁচু মানের পেস বোলার।’

যখনই ইনজুরিতে পড়েছেন মাশরাফি, প্রচণ্ড লড়াই করে ফিরে এসেছেন। দলকে দিয়েছেন ভরসা। শুধু কোনো রকমে টিকে থাকাই নয়, মাশরাফি লড়াই করেছেন সেরাদের কাতারে থাকার। জিতে চলেছেন সেই লড়াইয়ে। এখনও তিনি ওয়ানডেতে দেশের সেরা বোলার।

এই সংস্করণে বাংলাদেশের সবসময়ের সর্বোচ্চ শিকারি ৮ বার অস্ত্রোপচার টেবিলে যাওয়া মাশরাফি। আর নেতৃত্বের দায়িত্ব নেওয়ার পর চার বছরে ৫১ ম্যাচে নিয়েছেন ৭১ উইকেট। এ সময়টায় দুইয়ে থাকা সাকিব আল হাসান দুই ম্যাচ বেশি খেলে উইকেট নিতে পেরেছেন ৫টি কম।

মাশরাফিকে তাই আদর্শ হিসেবে উল্লেখ করে ওয়ালশ বলেন, ‘আমি মনে করি, সে যতটা করতে পারে, তার পুরোটাই সে করতে চায়। তরুণদেরও এই ক্ষুধা থাকতে হবে। আমরা কেবল আড়াল থেকে কাজ করতে পারি। কিন্তু তরুণদের মাঠে নেমে সর্বোচ্চ পর্যায়ে পারফর্ম করতে হবে। ম্যাশ তার পারফরম্যান্সকে আত্মসম্মান হিসেবে দেখে। সেখানেই আমি মনে করি অন্যদের সঙ্গে বড় পার্থক্য। সে তার ক্ষুধাটা ফুটিয়ে তোলে, সে পারফর্ম করতে চায়, ভালো করতে চায়, লড়াই করতে চায়।’কালের কণ্ঠ