শারীরিক দুর্বলতাতেই স্লগ ওভারে ব্যর্থতাঃ আরিফুল

স্লগ ওভারে বা ইনিংসের শেষ দিকের ওভারে বাংলাদেশের ব্যাটিং দুর্বলতার কথা কারোর অজানা নয়। এই জায়গায় দলের প্রয়োজন মতো ব্যাটিং না করার কারণে বেশ অনেক ম্যাচেই তীরে এসে তরী ডুবেছে বাংলাদেশ দলের।

টাইগারদের নতুন ব্যাটিং কোচ নিল ম্যাকেঞ্জি দায়িত্ব নেয়ার পরই এই জায়গার ব্যাটিং নিয়ে কাজ শুরু করেছেন। কদিন আগেই তিনি জানিয়েছিলেন, শুধু ছয় মেরে নয় স্লগ ওভারে কৌশলী ব্যাটিং করে রান তুলতে হবে বাংলাদেশ দলের ব্যাটসম্যানদের।

নিয়মতই স্লগ ওভারে ব্যাটিং করতে হয়ে বাংলাদেশ দলের পেস বোলিং অলরাউন্ডার আরিফুল হকের। তিনিও জানিয়েছেন স্লগ ওভারের ব্যাটিং নিয়ে কাজ করছেন তারা। আরিফুল মনে করেন বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা শারীরিক সক্ষমতার কারণেই শেষ ১০ ওভারে বড় সংগ্রহ গড়তে পারেন না।

‘শারীরিক কাঠামোর জন্য শেষ দশ ওভারে আমাদের ১০০/১২০ রান তোলা সম্ভব হয় না। যেটা অন্যান্য দেশের ক্রিকেটাররা সহজেই তুলতে পারে। সেক্ষেত্রে আমরা বড় শট খেলতে গেলে কোথায় কি করা লাগে সেগুলো নিয়ে আমি কাজ করেছি। তবে বেশি ছক্কা মারার মানসিকতা থেকে বের হয়ে গ্যাপ শট বেশি খেলার পরামর্শ দিয়েছেন নির্বাচকরা এই দলটাকেই লম্বা সময় বাজিয়ে দেখতে চাই।’

ইতিমধ্যেই হার্ড হিটিংয়ের সামর্থ্য থাকায় কোচের বাহবা পেয়েছেন আরিফুল। ম্যাকেঞ্জি আরিফুলকে স্ট্রাইক রোটেড করে খেলার পরামর্শ দিয়েছেন। এরফলে তার ইনিংসগুলো বড় হবে বলে বিশ্বাস কোচের। একটা জানিয়েছেন খোদ আরিফুল।

‘তিনি বলেছেন, তোমার হার্ড হিটিংয়ের এ্যাবিলিটি আছে। এর সাথে তুমি যদি সিঙ্গেল রোটেট করে খেলতে পারো, তাহলে তোমার জন্য অনেক ভালো হবে। তাহলে তোমার স্কোর গুলো বড় হবে। একই সাথে প্রথম দিকে মাথা ঠান্ডা করে বল দেখে ব্যাট চালানোর পরামর্শ দিয়েছেন তিনি। এখন দুবাই যাওয়ার পর সেখানে টিম প্ল্যান অনুসারে ম্যাচে কনট্রিবিউট করতে চেষ্টা করব আমি।