ভারী শরীরে শাড়ির ধরন, জেনে নিন গোপন কিছু টিপস !

বারো হাত লম্বা, সেলাইবিহীন এক খণ্ড পরিধেয় বস্ত্র – জি, শাড়ির কথাই বলছি! বাঙালি নারীদের কাছে শাড়ি এখন আর শুধু পোশাক নয়, বরং ঐতিহ্য হিসেবেই বিবেচিত হয়। শাড়ি হয়তো নিয়মিত অনেকেই পরেন না, তবে শাড়ি পরতে ভালোবাসেন না এমন নারী হয়তো খুঁজেই পাওয়া যাবে না। দৈনন্দিন দিনে শাড়ি না পরলেও যেকোনো উত্‍সব বা অনুষ্ঠানে শাড়ি পরার সুযোগ ছাড়েন না কোনো নারীই। তা বয়স আর শারীরিক গড়ন যেটাই হোক! তবে যাঁদের শারীরিক গড়ন একটু ভারী, তাঁরা শাড়ি পরা নিয়ে প্রায়ই দ্বিধায় ভুগে থাকেন। শাড়ি পরলে আরো মোটা দেখাবে এ দুশ্চিন্তায় শাড়ি এড়িয়ে থাকেন অনেকেই। কিন্তু একটুখানি বুদ্ধি খাটিয়ে শাড়ি পরলে ভারী শরীরেও আপনি হয়ে উঠতে পারেন আকর্ষণীয়া।

সঠিক শাড়ি নির্বাচন :
আপনার শারীরিক গড়ন যদি স্বাভাবিকের চেয়ে কিছুটা ভারী হয়, তাহলে শাড়ির তালিকা থেকে ভারী, মোটা কাপড় অবশ্যই বাদ দিন। যেসব শাড়ি পরলে ফুলে থাকবে সেসব কাপড়ের শাড়িও পরতে যাবেন না। যেমন মসলিন, খাদি ইত্যাদি। মাড় দেয়া সুতি শাড়ি দেখতে ভালো লাগলেও তা ভারী গড়নের নারীদের এড়িয়ে যাওয়াই উচিত। কারণ এতে আপনাকে আরো বেশি মোটা দেখাবে। বাছাই করুন হালকা ও পাতলা কাপড়ের শাড়ি, কারণ এগুলো পরলে ফুলে থাকবে না। যেমন সিল্ক, জর্জেট ইত্যাদি। আর যদি নিতান্তই সুতির মধ্যে কিছু পরতে চান, তাহলে বেছে নিন কোটা শাড়ি।

রঙ হোক উজ্জ্বল এবং গাঢ় :
গাঢ় রঙ শরীরের ভারী গড়নকে অনেকটাই আড়াল করতে সক্ষম হয়। তাই শাড়ির জন্য বেছে নিন গাঢ় কিন্তু উজ্জ্বল রঙ। যেমন লাল, মেরুন, সবুজ, নীল, পার্পল, খয়েরি, গেরুয়া ইত্যাদি। উজ্জ্বল সোনালি, চোখ ধাঁধানো রূপালি ইত্যাদি রঙ এড়িয়ে চলুন। এছাড়া চাকচিক্যময় কাপড়ের শাড়ি এড়িয়ে চললেই ভালো করবেন।

এড়িয়ে চলুন অতিরিক্ত কাজ করা শাড়ি :
অতিরিক্ত কাজ করা ভারী শাড়িতে শারীরিক গড়ন আরো মোটা দেখায়। চওড়া পাড়ের শাড়িও শারীরিক গড়নকে আরো ভারী করে। তাই হালকা কাজ বা ছোট প্রিন্টের শাড়ি পরুন।

শাড়ি পরুন কৌশলে :
একটু কৌশল খাটিয়ে শাড়ি পরলেই ঢেকে যায় শরীরের ভারী অংশগুলো। নাভির ওপরে শাড়ি না পরে নাভি বরাবর অথবা নাভির একটু নিচে শাড়ি পরুন। কুচি গুঁজে দিন ঠিক মাঝ বরাবর। আঁচল চিকন করে ভাঁজ করে পিন দিয়ে আটকে দিন। অথবা পুরোপুরি ছেড়ে রাখতে পারেন। তবে কখনোই চওড়া ভাঁজ দিয়ে আঁচল নেবেন না। এতে বেশি মোটা দেখা যায়।

অনুষঙ্গ :
শাড়ির পাশাপাশি কিন্তু গয়নাও শরীরের ভারিত্ব ফুটিয়ে তোলে! তাই গয়না নির্বাচন করুন শাড়ির সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে। নইলে সুন্দর করে শাড়ি পরাটাই মাটি হয়ে যাবে। শরীরের গড়ন ভারী হলে গলাকে বেষ্টন করে রাখে এমন গয়না এড়িয়ে চলাই ভালো। চওড়া পাড়ের শাড়ি পরলে একটু চিকন ধরনের মালা পরুন, সাথে মাঝারি কানের দুল। চিকন পাড়ের শাড়ি পরলে ভারী গয়না না পরে লকেট পরুন। বালা পরলে হাত অনেক ভারী দেখায়, তাই হাতে পারুন চুড়ি। দেখবেন, আপনার ভারী গড়ন অনেকটাই ঢাকা পড়ে গেছে।